kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আটক ৩

নওগাঁ থেকে অপহরণের চার দিন পর বগুড়ায় শিশু উদ্ধার

নওগাঁ প্রতিনিধি    

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৫:২৪



নওগাঁ থেকে অপহরণের চার দিন পর বগুড়ায় শিশু উদ্ধার

নওগাঁ থেকে অপহরণের চার দিন পর রাসিব ওরফে সাগর (৯) নামে এক শিশুকে বগুড়া জেলার ধুনট থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় তিনজন অপহরণকারীকে আটক করা হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার বিকেলে বগুড়া জেলার ধুনট উপজেলার সেরবাড়ী ঘাট হতে মাদারগঞ্জে নিয়ে যাওয়ার পথে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়।

ঘটনার শিকার সাগর নওগাঁ সদর উপজেলার চকরামচন্দ্র সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী ও চকপাথুরিয়া গ্রামের পিন্টু রহমানের ছেলে। আটককৃতরা জামালপুর জেলার মাদারগঞ্জ উপজেলার ছুড়িপাড়া গ্রামের মেজবাউল ইসলামের ছেলে সুজন মিয়া (৩০), তার কথিত স্ত্রী রাবেয়া বিবি (২০) এবং অপর কথিত স্ত্রী রহিমা বিবি (২৬)।

রাসিফের বাবা পিন্টু রহমান জানান, সুজন মিয়া ও রহিমা বিবি স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে ১২ দিন আগে তার নিজ বাড়ি চকপাথুরিয়া গ্রামের একটা ঘর ভাড়া নেন। সেখানে ৫-৭ দিন থাকার পর তারা গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে যান। এরপর আবার ঈদের দুই দিন আগে ভাড়া বাড়িতে আসেন। পরদিন গত ১২ সেপ্টেম্বর তাদের বাড়িতে না থাকার সুযোগে ছেলে রাসিফকে চিপস কিনে দেওয়ার কথা বলে নিয়ে গিয়ে আর ফিরে আসেনি। এর ৪-৫ ঘণ্টা পর সুজন মিয়া ও রহিমা বিবি পিন্টু রহমানের মোবাইলে ফোন দিয়ে ছেলে রাসিফকে অপহরণ করা হয়েছে বলে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। এ ঘটনায় প্রথমে নওগাঁ সদর মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়।

নওগাঁ সদর মডেল থানার ওসি তরিকুল ইসলাম ও মামলার তদন্তকারী এসআই সোহেল রানা জানান, ঘটনার পর বাদীর বাড়ি থেকে রহিমা বিবিকে আটক করা সম্ভব হলেও সুজন মিয়াকে আটক করা সম্ভব হচ্ছিল না। সুজন মিয়া মোবাইল ফোনে পিন্টু রহমানের কাছ থেকে বিকাশের মাধ্যমে টাকা নেওয়ার জন্য বারবার চাপ দিতে থাকে। তখন কৌশলে কিছু টাকা বিকাশ ও রিচার্জ করে কথোপকথনের মধ্যে সুজন মিয়ার অবস্থান নিশ্চিত করার জন্য চষ্টো করা হচ্ছিল। কিন্তু মোবাইল ফোনে কথা শেষ হতেই মোবাইল ফোন বন্ধ করে অবস্থান পরিবর্তন করছিলেন সুজন।

সুজনকে রাজশাহী, সিরাজগঞ্জ, নাটোর, জয়পুরহাট এবং বগুড়া জেলার বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করা হয়। অবশেষে শুক্রবার বিকেলে বগুড়া জেলার ধুনট উপজেলার সেরবাড়ী ঘাট থেকে মাদারগঞ্জ যাওয়ার পথে শিশু রাসিফকে উদ্ধারসহ সুজন ও তার অপর কথিত স্ত্রী রাবেয়াকে আটক করা হয়। এরপর তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাত ৮টায় নওগাঁ সদর থানায় শিশু রাসিফকে নিয়ে এসে তার অভিভাবকদের হাতে তুলে দেওয়া সম্ভব হয়েছে। ওসি আরো বলেন, অপহরণকারীদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এদের সঙ্গে যারা জড়িত তাদেরও আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে।


মন্তব্য