kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ফরিদপুরে মোটরসাইকেল কিনে না দেওয়ায় ঘরে আগুন, মা-বাবা দগ্ধ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:৩৭



ফরিদপুরে মোটরসাইকেল কিনে না দেওয়ায় ঘরে আগুন, মা-বাবা দগ্ধ

মোটরসাইকেল কিনে না দেওয়ায় মা-বাবার ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয় ১৭ বছরের এক কিশোর। এতে ওই কিশোরের মা-বাবা দগ্ধ হন।

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে ফরিদপুর শহরের কমলাপুর বটতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় দগ্ধ বাবা এটি এম রফিকুল হুদাকে (৪৮) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। মা সিলভিয়া হুদাকে (৪০) ফরিদপুরে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

দগ্ধ রফিকুল হুদা পেশায় ব্যবসায়ী। ওই কিশোর তাদের একমাত্র সন্তান।

রফিকুল হুদার ভগ্নিপতি আকরাম উদ্দিন আহমেদ জানান, এ বছর ফরিদপুর জিলা স্কুল থেকে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে বাবার কাছে নতুন মডেলের একটি মোটরসাইকেল দাবি করে। কিন্তু মোটরসাইকেল কিনে দিতে অস্বীকৃতি জানালে সে বাবার ওপর ক্ষুব্ধ হয়। এক পর্যায়ে সে ঘরের মধ্যে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে রফিকুল হুদার শরীরের বিভিন্ন অংশ ও মা সিলভিয়া হুদার পায়ের কিছুটা অংশ পুড়ে যায়। এলাকাবাসী তাঁদের উদ্ধার করে প্রথমে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়। তবে রফিকুলের অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় তাঁকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়।  

ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘আগুনে রফিকুল হুদার শরীরের ৬০ ভাগ পুড়ে গেছে। আমরা সঙ্গে সঙ্গেই তাঁকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে স্থানান্তর করি। ’

রফিকুলের সঙ্গে থাকা আরেক ভগ্নিপতি গোলাম মাহমুদ বলেন, শুক্রবার বিকেল ৪টার দিকে রফিকুল হুদাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে নেওয়া হয়েছে। চিকিৎসকেরা তাঁকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রেখেছেন।

এ ব্যাপারে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাজিম উদ্দিন জানান, এ ঘটনায় শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত কেউ থানায় অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


মন্তব্য