kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


চট্টগ্রামের ৩০ গ্রামে একদিন আগেই ঈদুল আজহা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১২:৩৮



চট্টগ্রামের ৩০ গ্রামে একদিন আগেই ঈদুল আজহা

চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলার প্রায় ৩০ গ্রামে কিছু মানুষ আজ সোমবার পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপন করছেন। সাতকানিয়ার মির্জারখীল দরবার শরিফের মুরিদরা সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে অন্যান্য বছরের মতো এবারও একদিন আগে ঈদ উদযাপন করছেন।

নির্দিষ্ট মতবাদের অনুসারী এসব গ্রামের বাসিন্দারা সকালে নিজ নিজ মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন। এরপর গ্রামে গ্রামে প্রাণী জবাই করে পালন করা হচ্ছে ঈদুল আজহা। প্রচলিত নিয়মের আগে ঈদুল ফিতর উদযাপনকারীদের অধিকাংশই দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়া ও চন্দনাইশ উপজেলার বাসিন্দা।

সোমবার সকাল ১০টায় মির্জারখীল দরবার শরিফে ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করেছেন হাজারো মুসল্লি। দরবার শরিফের পীর হয়রত মাওলানা মোহাম্মদ আরেফুল হাই এর বড় ছেলে মুফতি মাওলানা মোহাম্মদ মকছুদুর রহমান ঈদের নামাজে ইমামতি করেছেন। চট্টগ্রাম ছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থানে থাকা মির্জারখীল দরবার শরিফের অনেক মুরিদ ঈদের নামাজে শরিক হয়েছেন বলে জানিয়েছেন সাতকানিয়ার বাসিন্দা সাংবাদিক দিদারুল আলম। তিনি জানান, দরবার শরিফ ছাড়াও বিভিন্ন গ্রামে মুরিদরা ঈদ জামাতের আয়োজন করেছেন।

মির্জারখীল দরবার শরিফ সূত্রমতে, সাতকানিয়ার মির্জারখীল, গাটিয়া ডেঙ্গা, মাদার্শা, চন্দনাইশের কাঞ্চননগর, হারাল, বাইনজুরি, কানাই মাদারি, সাতবাড়িয়া, বরকল, দোহাজারী, জামিরজুরি, বাঁশখালীর কালিপুর, চাম্বল, শেখের খীল, ডোংরা, ছনুয়া, আনোয়ারার বরুমছড়া, তৈলারদ্বীপ, লোহাগাড়ার পুটিবিলা, কলাউজান, বড়হাতিয়া এবং পটিয়া, বোয়ালখালী, হাটহাজারী, সন্দ্বীপ, রাউজান, ফটিকছড়ির কিছু এলাকাসহ চট্টগ্রামের মোট ৩০টি গ্রামের কিছু সংখ্যক মানুষ সোমবার ঈদুল আজহা উদযাপন করছেন।

এ ছাড়াও পার্বত্য জেলা বান্দরবানের লামা, আলীকদম, নাইক্ষ্যংছড়ি, কক্সবাজারের চকরিয়া, টেকনাফ, মহেশখালী, কুতুবদিয়া ও হ্নীলা বেশ কয়েকটি গ্রামের কিছু লোক একই সময়ে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন। প্রায় দুই শ বছর আগে তৎকালীন পীর মাওলানা মুখলেছুর রহমান (রহ.) একদিন আগে অর্থাৎ পৃথিবীর অন্য যেকোনো দেশে চাঁদ দেখা গেলেই রোজা, ঈদ এবং কোরবানি পালনের নিয়ম প্রবর্তন করেন। এরপর থেকে সারা দেশে মির্জারখীল দরবারের অনুসারীরা এ নিয়ম পালন করে আসছেন।

 


মন্তব্য