kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


রাজশাহীতে খালের দখল নিয়ে মারপিট ও গুলি, আহত ৫

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:১৫



রাজশাহীতে খালের দখল নিয়ে মারপিট ও গুলি, আহত ৫

রাজশাহীর দুর্গাপুর ও বাগমারার সীমান্তবর্তী এলাকায় একটি খালের দখল নিয়ে আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের মধ্যে মারপিট ও গুলির ঘটনা ঘটেছে। আজ রবিবার সন্ধ্যার দিকে খালে সুতি জাল দিয়ে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় দুর্গাপুরের কয়ামজমপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আফছার আলীর ছেলে রিপন আলী ও রতন আলীসহ অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গত কয়েকদিন ধরেই দুর্গাপুর ও পাশ্ববর্তী বাগমারা উপজেলার সীমান্ত এলাকা দিয়ে যাওয়া মরা খালে ‍সুতার জাল দিয়ে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে দুর্গাপুরের কয়ামাজমপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আফছার আলী ও বাগমারার তারেপুর পৌর মেয়র আবুল কালাম আজাদের অনুসারীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করে আসছিল। এরই জের ধরে গতকাল শনিবার বিকেলে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এরই জের ধরে আজ রবিবার সন্ধ্যার দিকে আফছার চেয়ারম্যানের দুই ছেলে রিপন ও রতনের নেতৃত্বে পুরান তাহেরপুরের লোকজন খালে সুতি জাল ফেলে দখল নিতে যান।
এ সময় প্রতিপক্ষ তাহেরপুর পৌর মেয়র আবুল কালাম আজাদের অনুসারীরা বাধা দেন। এ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে মারপিটের ঘটনা ঘটে। পরে কালামের অনুসারীরা কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়ে ভীতকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করে। এক পর্যায়ে তারা রিপন ও রতনসহ তাদের লোকজনকে ধরে মারপিট করে সেখান থেকে তাড়িয়ে দেয়। এ ঘটনার পরে ওই এলাকায় চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

এ বিষয়টি স্বাকার করেছেন আফছার চেয়ারম্যানের দুই ছেলে আহত রিপন ও রতন। এ ঘটনায় তারা তাহেরপুর পৌর মেয়র আবুল কালাম আজাদকেও দায়ী করেন।

তবে তাহেরপুর পৌর মেয়র কালামের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে দুর্গাপুর থানার ওসি রুহুল আমিন বলেন, বিষয়টি আমার জানা নাই। এই ধরনের ঘটনা ঘটে থাকলে এবং অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  


মন্তব্য