kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সাতটি বন্দুক এবং গুলি উদ্ধারের দাবি

যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযমের দেহরক্ষীর ভাই গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার    

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:০৫



যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযমের দেহরক্ষীর ভাই গ্রেপ্তার

কক্সবাজারের মহেশখালীতে প্রয়াত যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযমের দেহরক্ষী আখতার হামিদের ভাই ১১ মামলার পলাতক আসামি মো. শাহজাহানকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। আজ শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের কেরুনতলী এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

অভিযানকালে সাতটি বন্দুক, ১৫ রাউন্ড বন্দুকের গুলি এবং এয়ারগানের তিন  হাজার ৪০০ পিস গুলি উদ্ধার করা হয়েছে বলে দাবি করেছে র‍্যাব।
 
গ্রেপ্তার শাহজাহান একই এলাকার মৃত হাজী আবদুল মাবুদের ছেলে ও শীর্ষ সন্ত্রাসী সাবেক চেয়ারম্যান এনাম বাহিনীর প্রধান এনামের মেঝ ভাই। বিকেল ৫টায় র‍্যাব ৭ কক্সবাজার ক্যাম্পে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান কম্পানি অধিনায়ক এএসপি মো. শরাফত ইসলাম।

শরাফত ইসলাম জানান, র‍্যাব সদস্যরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে কেরুনতলী এলাকা থেকে শাহজাহানকে গ্রেপ্তার করে। এ সময় তার স্বীকারোক্তি মতে পার্শ্ববর্তী একটি পুকুরের ভেতর থেকে চারটি একনালা বন্দুক, তিনটি ওয়ান শুটার গান, ১৫ রাউন্ড বন্দুকের গুলি এবং এয়ারগানের তিন হাজার ৪০০ পিস গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে মহেশখালী থানায় হত্যা, চাঁদাবাজি, ডাকাতি, অস্ত্র, অপহরণসহ ১১টি মামলা রয়েছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শাহজাহান অবৈধ অস্ত্র ও গুলি মজুদ রাখার কথা স্বীকার করেছেন বলে জানা গেছে। এ ছাড়া তার ছোট ভাই হোয়ানক ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান এনামুল হক একজন সন্ত্রাসী ও এনাম বাহিনীর প্রধান হিসে্বে পরিচিত। গত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে যৌথ বাহিনীর নিকট একটি একে ৪৭ রাইফেল হস্তান্তর করেন এনাম। বর্তমানে তিনি পলাতক থাকলেও তার ভাই শাহজাহান সক্রিয় সদস্য হিসেবে কাজ করছেন। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করে মহেশখালী থানায় হস্তান্তর করা হবে বলে জানান র‍্যাবের এ কর্মকর্তা।

এ ছাড়া শাহজাহান ও এনামের বড় ভাই  কৃষিবিদ আখতার হামিদ একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধে দণ্ডিত প্রয়াত অধ্যাপক গোলাম আযমের দেহরক্ষী ছিলেন। বর্তমানে তিনিও আত্মগোপনে রয়েছেন বলে জানা গেছে।  

 

 


মন্তব্য