kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের দুর্ভোগ

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ৪০ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজট

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১০:৩৪



ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ৪০ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজট

মেঘনা সেতুতে গাড়ি বিকল আর অতিরিক্ত যানবাহনের চাপে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ৪০ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

গত তিন দিনের যানজটের রেশ কাটতে না কাটতেই গতকাল বুধবার রাত ২টা থেকে আজ বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মহাসড়কের দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুর থেকে মেঘনা-গোমতি সেতু পাড় হয়ে সোনারগাঁও উপজেলার কাঁচপুর পর্যন্ত ৪০ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

এতে ঈদে ঘরমুখো মানুষ, পণ্যবাহী যানবাহন ‌এবং কোরবানির পশুর গাড়ি ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে আটকা পড়ে।

দাউদকান্দি ও গজারিয়া হাইওয়ে পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে চার লেনের গাড়িগুলো মেঘনা-গোমতি ও মেঘনা সেতুর ওপর দিয়ে যাওয়ার সময় দুই লেনে পরিণত হয়। ফলে গাড়িগুলোকে ধীরগতিতে সেতু দুটি পার হতে হয়। এ সময় থেমে থেমে যানজট সৃষ্টি হয়। গত তিন দিনের যানজটের রেশ কাটতে না কাটতেই বুধবার রাতে মেঘনা সেতুর ওপর অতিরিক্ত মালবোঝাই একটি ট্রাক বিকল হয়ে পড়লে এ দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়। গজারিয়া হাইওয়ে পুলিশ গাড়িটি সরিয়ে নিলে আবার যানবাহন চলাচল শুরু হয়। কিন্তু ঈদে অতিরিক্ত মালবোঝাই ফিটনেসবিহীন ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান সেতুর ওপর দিয়ে ধীর গতিতে চলাচলের ফলে যানজট আরো দীর্ঘতম হয়।

গজারিয়া হাইওয়ে পুলিশের সার্জেন্ট শাহ জামান রাজ বলেন, "একদিকে অতিরিক্ত গাড়ির চাপ অন্যদিকে অন্যদিকে ফিটনেসবিহীন গাড়ির মালিকরা অতিরিক্ত লাভের আশায় পুরানো গাড়িগুলো সেতুর ওপর দিয়ে খুব ধীর গতিতে চলে। কোনোটি আবার মাঝপথে বিকল হয়ে যানঝট সৃষ্টি করে। "

দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশের এসআই মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, "চার লেনের গাড়িগুলো দুই লেন সেতুর ওপর দিয়ে ধীর গতিতে যাওয়ার সময় যানঝট সৃষ্টি হয়। বিকল্পভাবে নির্মাণাধীন মেঘনা, গোমতী এবং কাঁচপুর সেতু নির্মাণের কাজ শেষ হলেই আর যানজট থাকবে না। তাছাড়া মহাসড়কে ওজন নিয়ন্ত্রক (স্কেল) মেশিন না থাকায় চালকরা অতিরিক্ত মালবোঝাই গাড়িগুলো সেতুর ওপর উঠেই বিকল হয়ে পড়ে। এ কারণে সৃষ্টি হয় দীর্ঘ জানজট।

দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশের ওসি আবদুল আউয়াল বলেন, "যানজট স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনতে দাউদকান্দি ও গজারিয়া হাইওয়ে পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে। এ রিপোর্ট লেখার সময় পর্যন্ত যানজট অব্যাহত রয়েছে। "   

 


মন্তব্য