kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


রিশা হত্যার আসামি ওবায়দুলকে ধরিয়ে দেওয়ায় তিনজনকে সংবর্ধনা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৫:৫৫



রিশা হত্যার আসামি ওবায়দুলকে ধরিয়ে দেওয়ায় তিনজনকে সংবর্ধনা

ঢাকার উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্রী সুরাইয়া আক্তার রিশা (১৫) হত্যার আসামি ওবায়দুল হককে (২৮) ধরিয়ে দেওয়ায় তিনজনকে সংবর্ধনা দিয়েছে নীলফামারীর ডোমার থানা পুলিশ। আজ মঙ্গলবার দুপুরে ডোমার থানার চত্বরে ওপেন হাউজ ডে ও কমিউনিটি পুলিশিং সভায় এ সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

ডোমার থানার ওসি আহমেদ রাজিউর রাজুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা পুলিশ সুপার জাকির হোসেন খান। সংবর্ধিতরা হলেন উপজেলার সোনারায় এলাকার মাংস ব্যবসায়ী দুলাল হোসেন (৪৩), অটোচালক ঈসমাইল হোসেন(২৫) ও ইউপি সদস্য শাহজাহান আলী (৩৫)।

সংবর্ধনা পেয়ে পেয়ে দুলাল হোসেন আবেগালুপ্ত হয়ে বলেন, "আজ আমি ধন্য। যেদিন রিশা হত্যার আসামি ওবায়দুলকে আমি ধরিয়ে দেই সেদিন থেকেই আমি সেখানে যাই, আমাকে দেখে সবাই বলে ওই যে খুনিকে ধরিয়ে দেওয়া সাহসী মানুষটি। এ কথাটি যখনই শুনি তখনই মনে হয় প্রতিদিন এভাবে ভালো কাজ করি। "

নীলফামারী পুলিশ সুপার জাকির হোসেন খান বলেন, "রিশা হত্যার আসামি  ওবায়দুলকে গ্রেপ্তারের জন্য যখন সারা দেশে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ও পুলিশের অভিযান চলছে। ঠিক ওই সময়ে ডোমার থেকে দুলাল, শাহজাহান এবং ঈসমাইল  আসামি ওবায়দুলকে পুলিশে ধরিয়ে দেন। " তিনি বলেন, "আজ আমরা তাদের সংবর্ধনা হিসেবে কিছু অর্থ দিতে পেরে ঋণমুক্ত হলাম। " এ সংবর্ধনা দেখে ডোমারের মানুষ তাদের মতো ভালো কাজ করতে আর ভয় বা দ্বিধা করবেন না বলে মনে করেন তিনি।  

ডোমার থানা ও কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের আয়োজনে সভায় বক্তব্য দেন পৌর মেয়র আলহাজ মনছুরুল ইসলাম দানু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক খায়রুল আলম বাবুল, ডোমার সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোসাব্বের হোসেন মানু, সোনারায় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, ডোমার বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রবিউল আলম, ডোমার সিনিয়র মাদ্রাসার অধ্যক্ষ শামসুদ্দিন হোসাইনী বক্তব্য দেন।

উল্লেখ্য, গত ৩১ আগস্ট ঢাকার উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্রী সুরাইয়া আক্তার রিশার (১৫) হত্যাকারী উপজেলার সোনারায় বাজার থেকে ওবায়দুল হককে (২৮) গ্রেপ্তার করা হয়। ওবায়দুলকে ধরে পুলিশে খবর দেন ওই এলাকার দুলাল, শাহজাহান এবং ঈসমাইল। ডোমার পুলিশ, ডিএমপি পুলিশ এবং র‍্যাব তাকে ধরে ঢাকায় নিয়ে যায়।

 


মন্তব্য