kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কালকিনিতে যৌতুক দিতে না পেরে গৃহবধুর আত্মহত্যা!

মাদারীপুর প্রতিনিধি   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৬:০৫



কালকিনিতে যৌতুক দিতে না পেরে গৃহবধুর আত্মহত্যা!

স্বামীর দাবি করা যৌতুকের টাকা দেওয়ার সামর্থ ছিল না তার। সেইসঙ্গে যৌতুকলোভী অকর্মণ্য স্বামীর প্রতিদিনের অমানুষিক নির্যাতনও আর সইতে পারছিলেন না রত্না মন্ডল।

তার ছিল না কোন সহায়। তাই শেষ পর্যন্ত চিরশান্তির দেশেই পাড়ি জমালেন তিনি। আজ রবিবার সকালে মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার ডাসার থানার ধামুসা গ্রামের রত্না মন্ডল (২৮) বিষপান করে আত্মহত্যা করেছেন। এই ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত স্বামী সুমন মন্ডল পলাতক আছে।

ভুক্তভোগী পরিবার, স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, কালকিনি উপজেলার ডাসার থানার ডাসার ইউনিয়নের ধামুসা গ্রামের নারায়ন ঢালীর মেয়ে রত্না ঢালীর সঙ্গে শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার নড়িয়া গ্রামের সুমন মন্ডলের প্রায় ৭ বছর আগে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়।

বিয়ের পর থেকেই সুমন মন্ডল ৫০ হাজার টাকা যৌতুকের জন্য বিভিন্ন সময় রত্নার উপর শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করে আসছে। স্বামী সুমন মন্ডলের ঐ দাবি করা যৌতুকের  টাকা দিতে ব্যর্থ হয়ে  রত্না মন্ডল রবিবার সকালে বাবার বাড়িতে গিয়ে বিষপান করেন। পরিবারের লোকজন টের পেয়ে রত্নাকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রত্নার মৃত্যু হয়।

এ ব্যাপারে নিহত রত্নার বাবা নারায়ন ঢালী কান্না জরিত কণ্ঠে বলেন, আমার মেয়েকে তার স্বামী সুমন যৌতুকের জন্য নানাভাবে নির্যাতন করতো। যৌতুকের টাকা না দিলে শশুরবাড়িতে আর নিয়ে যাবেনা বলেও হুমকি দেয়। এসব নির্যাতন সইতে না পেরে আমার মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। আমি এর বিচার চাই।

এ ব্যাপারের অভিযুক্ত নিহতের স্বামী সুমন মন্ডলের সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে কালকিনির ডাসার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. এমদাদুল হক বলেন, এ বিষয় জেনেছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।


মন্তব্য