kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


গোপালগঞ্জে সেন্ট মথুরানাথ বসুর ১১৫তম মৃত্যুবাষির্কী পালিত

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি    

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৭:১৭



গোপালগঞ্জে সেন্ট মথুরানাথ বসুর ১১৫তম মৃত্যুবাষির্কী পালিত

গোপালগঞ্জে সেন্ট মথুরানাথ বসুর ১১৫তম মৃত্যুবাষির্কী পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে শুক্রবার সকাল ১১টায় খ্রিষ্টান ফেলোশিপ স্থানীয় খৃষ্টানপাড়া থেকে একটি শোকযাত্রা বের করে।

পরে সমাধি সৌধে মাল্যদান, প্রার্থনা এবং বিকেলে আলোচনা সভার আয়োজন করে।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, গোপালগঞ্জের পশ্চাদপদ জনগোষ্ঠীকে অন্ধকার থেকে আলোয় নিয়ে আসতে সেন্ট মথুরানাথ বসুর ভূমিকা ছিল অপরিসীম। তিনি ছিলেন এ অঞ্চলের শিক্ষার অগ্রদূত, সমাজ সংস্কারক এবং ভাটির মানুষের আশার আলো। তাঁরা বলেন, প্রায় দেড় শ বছর আগে এ অঞ্চলটি ছিল জলাভূমি ও প্লাবনপ্রবণ এলাকা। আদিবাসীদের প্রায় সবাই ছিল নিম্ন বর্ণের হিন্দু সম্প্রদায়ের লোক। তারা সবাই ছিলেন  গরিব ও অশিক্ষিত। দশ গ্রামের মধ্যে নাম স্বাক্ষরকারী কাউকে পাওয়া যেত না।

বক্তারা আরো বলেন, অতিদরিদ্র, অনুন্নত এবং অশিক্ষিত মানুষের মুক্তির বার্তা পৌঁছে দিতে কলকাতার ভবানীপুরের লন্ডন মিশনারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকতার চাকরি ছেড়ে ১৮৭৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে নৌকাযোগে গোপালগঞ্জে পৌঁছান। শুরু করেন নিরক্ষর মানুষকে জাগিয়ে তোলার কাজ। গড়ে তোলেন শিক্ষাঙ্গণ, ভজনালয়, আদালত, পোস্ট অফিস, ব্যাংক, হাসপাতাল ‌এবং কৃষি খামার। অসহায় ও দরিদ্র মানুষের পাশে থেকে হয়ে ওঠেন তাদের বন্ধু। তাঁর প্রতিষ্ঠিত এই মিশন স্কুল থেকেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এন্ট্রান্স পাশ করেছিলেন।

এই মহান পুরুষ ১৯০১ সালের ২রা সেপ্টম্বর ৫৮ বছর বয়সে পরলোক গমন করেন উল্লেখ করে বক্তারা তাঁর জন্ম ও মৃত্যুদিবস সরকারিভাবে পালন করার দাবি জানান।

 


মন্তব্য