kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ভান্ডারিয়ায় উপকূলীয় সবুজ বেষ্টনী প্রকল্পের গাছ কেটে নিচ্ছে একটি চক্র

আঞ্চলিক প্রতিনিধি , পিরোজপুর   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৬:২৭



ভান্ডারিয়ায় উপকূলীয় সবুজ বেষ্টনী প্রকল্পের গাছ কেটে নিচ্ছে একটি চক্র

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় উপকুলীয় সবুজ বেষ্টনী প্রকল্পের আওতায় সৃজিত লক্ষাধিক টাকার গাছ কেটে নিয়েছে একটি চক্র। অভিযোগ উঠেছে বন বিভাগের কতিপয় অসাধু কর্মচারীদের যোগসাজশে গত শনিবার ও রবিবার দুই দিনে ওই প্রকল্পের গাছ কেটে নিয়ে স’মিলসহ বিভিন্ন স্থানে সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

এ ঘটনায় উপজেলার ধাওয়া গ্রামের চলন্তিকা মহিলা সমিতির সভানেত্রী ও সাবেক ইউপি সদস্য রোকেয়া বেগম বাদী হয়ে মঙ্গলবার ভান্ডারিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। বন বিভাগ অভিযান চালিয়ে মাত্র চার টুকরা গাছ জব্দ করে।

জানা গেছে, উপকূলীয় সবুজ বেষ্টনী প্রকল্পের আওতায় ১৯৯৭-১৯৯৮ অর্থ বছরে ভান্ডারিয়া উপজেলায় চলন্তিকা মহিলা সমিতি ও স্থানীয় বনায়ন কমিটির মোট ২৩৮জন উপকারভোগী মিলে ধাওয়া ইউনিয়নের ফুলতলা হতে কালিয়ার খাল সংলগ্ন সড়কের দুপাশে মোট ১২ কিলোমিটার ১২ হাজার রেইনট্রি ও মেহগনি গাছ রোপন করা হয় ।

চলন্তিকা মহিলা সমিতির সভানেত্রী রোকেয়া বেগম অভিযোগ করেন, ভান্ডারিয়া বন বিভাগের কর্মচারী মো.মজিবর হাওলাদার অর্থের বিনিময়ে প্রত্যক্ষ  সহযোগিতায় গত শনি ও রবিবার ধাওয়া গ্রামের মো. হারুন অর রশিদের নেতৃত্বে এ চক্রটি উক্ত গাছ কেটে নিয়ে যায়। বন বিভাগে অভিযোগ করলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা লোক দেখানো  দুই একটি গাছ জব্দ করে। তিনি আরও এ ছাড়া বনবিভাগের অসাধু কর্মচারীদের সহায়তায় প্রায়শই ভান্ডারিয়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে একটি চক্র অবৈধভাবে গাছ কেটে নিলেও বন বিভাগ উদাসীন ।

তিনি আরও জানান,গাছ কেটে নেওয়ার বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সংশ্লিষ্টবন বিভাগের কর্মকর্তাদের অবহিত  করেছি অবৈধ ভাবে গাছ কেটে নেওয়ার বিষয়ে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত ধাওয়া গ্রামের হারুন অর রশিদ গাছ কেটে নেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, গাছ আমি কাটিনি বন বিভাগের গার্ড মজিবুর রহমান গাছ কেটে নিয়েছেন।

ভান্ডারিয়া বন বিভাগের গার্ড মজিবুর রহমান তার বিরুদ্ধে গাছ কাটার অভিযোগ অসত্য দাবি করে বলেন, গাছ কেটে নিয়ে একটি চক্র। আমি উর্ধতন কর্তৃপক্ষ অবহিত করেছি। অভিযান চালিয়ে চারটি গাছের টুকরা উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে বন বিভাগ পিরোজপুর রেঞ্জের সামাজিক বনায়ন নার্সারি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দিপঙ্কর রায় গাছ কেটে নেওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আমরা ইতিমধ্যে কিছু গাছ জব্দ করেছি। তদন্ত করে গাছ কাটায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

ভান্ডারিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. কামরুজ্জামান তালুকদার জানান, গাছ কেটে নেওয়ার বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে । এ ব্যাপারে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


মন্তব্য