kalerkantho

রবিবার। ২২ জানুয়ারি ২০১৭ । ৯ মাঘ ১৪২৩। ২৩ রবিউস সানি ১৪৩৮।


গৌরনদীর স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে আশুলিয়ায় আটকে রেখে ধর্ষণ

ধর্ষণকারী গ্রেপ্তার

গৌরনদী প্রতিনিধি   

৩ এপ্রিল, ২০১৬ ১৬:১৭



গৌরনদীর স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে
আশুলিয়ায় আটকে রেখে ধর্ষণ

অপহরণ করে ২৮ দিন আটকে রেখে বরিশালের গৌরনদী গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রীকে (১৪) ধর্ষণ করা হয়েছে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে শনিবার রাতে ঢাকার আশুলিয়া থানা এলাকা থেকে অপহৃতা ধর্ষিত স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার ও ধর্ষণকারী সুলতান আহম্মেদকে (৩০) গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারকৃত সুলতান আহম্মেদ পটুয়াখালী জেলার মীর্জাগঞ্জ থানার আমলাগাছিয়া গ্রামের রশিদ গাজীর ছেলে।

গৌরনদী মডেল থানার ওসি মো. আলাউদ্দিন মিলন জানান, উপজেলার টিকাসার গ্রামের নানা ওহাব আলী হাওলাদারের বাড়িতে থেকে তার নাতনি (১৪) গৌরনদী গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজে নবম শ্রেণিতে লেখাপড়া করে আসছিল। ওই স্কুলছাত্রী গত ৫ মার্চ সকালে নানাবাড়ি থেকে স্কুলের উদ্দেশে রওনা দেয়। চরগাদাতলী এলাকায় পৌঁছলে বখাটে সুলতানের নেতৃত্বে বখাটে ৪-৫ জন যুবক ছাত্রীকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এরপর অপহরণকারীরা স্কুলছাত্রীকে ঢাকার আশুলিয়া থানাধীন একটি বাসায় ২৮ দিন আটকে রেখে দিনের পর দিন ধর্ষণ করে সুলতান। এ ব্যাপারে ধর্ষিতার নানা ওহাব আলী হাওলাদার বাদী হয়ে গৌরনদী মডেল থানায় একটি অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। গোপণ সংবাদের ভিত্তিতে গৌরনদী মডেল থানার এসআই মো. নজরুল ইসলাম আশুলিয়া থানা পুলিশের সহযোগিতায় শনিবার রাত সাড়ে ৮টায় আশুলিয়া থানার ইয়ারপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে অপহৃত ধর্ষিত স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার ও অপহরণকারী ধর্ষণকারী সুলতান আহম্মেদকে গ্রেপ্তার করে।

 


মন্তব্য