kalerkantho


চলন্ত বাসে পোশাক শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগ : আটক ৩

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ এপ্রিল, ২০১৬ ০১:৩৫



চলন্ত বাসে পোশাক শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগ : আটক ৩

টাঙ্গাইলে চলন্ত বাসে নারী ধর্ষণের অভিযোগে ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ। ওই নারী গাজীপুরের চন্দ্রায় একটি পোশাক কারখানায় কাজ করেন।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ধনবাড়ি-মধুপুর সড়কে বিনিময় পরিবহনের একটি বাসে এ ঘটনা ঘটে। দুপুরে তাকে টাঙ্গাইল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শুক্ররাব রাতেই তিন অভিযুক্তকে আটক করা হয়। তবে তাদের নাম এখনো জানায়নি পুলিশ।

ধর্ষণের শিকার ওই নারী জানান, শুক্রবার ভোর ৫টার সময় ধনবাড়ি উপজেলায় তার খালার বাড়ি থেকে গাজীপুরের চন্দ্রায় আসার জন্য বিনিময় পরিবহনের একটি বাসে উঠেন। আর কোনো যাত্রী না থাকায় গেট বন্ধ করে গাড়িটি ছাড়ার কিছুক্ষণ পর বাসের সুপারভাইজার ও চালকের দুই সহকারী এসে তার পাশের আসনে বসেন। একপর্যায়ে তারা তাকে ধর্ষণ করে। এ সময় তিনি চিৎকার করতে থাকেন, তবে চালক এর মধ্যেই বাসটি মধুপুর পর্যন্ত নিয়ে আসেন। ওই সময় ধর্ষকরা ওড়না দিয়ে তার মুখ বেঁধে রেখেছিল। একপর্যায়ে বাসটির চালক ঢাকার দিকে না এসে গাড়িটি ময়মনসিংহের দিকে নিয়ে যেতে থাকেন। সকাল সাড়ে ৭টার দিকে মধুপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে প্রায় আধাকিলোমিটার দূরে তাকে নামিয়ে চলে যায় বাসটি।

এ সময় ওই নারীর চিৎকার শুনে আশেপাশের লোকজন এসে তার স্বামীর কাছে ফোন করেন। স্বামী গিয়ে তাকে আনার পর দুপুরে টাঙ্গাইল মেডিক্যাল কলেজ হাসপতালে ভর্তি করেন।

টাঙ্গাইল মেডিক্যাল কলেজ হাসপতালের গাইনী বিভাগের চিকিৎসক রেহেনা পারভীন বলেন, প্রাথমিকভাবে ওই নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে মনে হচ্ছে। আলামত সংগ্রহ করে ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হয়েছে। পরীক্ষা হলে পরে জানা যাবে।

টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর জানান, ঘটনা শুনেই হাসপাতালে পুলিশ পাঠিয়েছি। ভিকটিমের বক্তব্যের সূত্রে রাত ১০টার দিকে তিনজনকে আটক করা হয়েছে।


মন্তব্য