kalerkantho


নীলফামারীর ৫ ইউনিয়নে শান্তিপূর্ণ ভোট

নীলফামারী প্রতিনিধি   

৩১ মার্চ, ২০১৬ ২০:১৫



নীলফামারীর ৫ ইউনিয়নে শান্তিপূর্ণ ভোট

নীলফামারী সদরের পাঁচ ইউনিয়ন পরিষদে বৃহস্পতিবার শান্তিপূর্ণ ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভোট কেন্দ্রে সকাল থেকে দেখা গেছে ভোটারদের দীর্ঘ সাড়ি।

তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে কমতে শুরু করে ভোটারদের উপস্থিতি।

উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট প্রদান শেষে ফিরেছে যে যার মতো করে। আবার অনেকেই ভোট শেষে কেন্দ্রের বাইরে ছিলেন ফলাফল জানার অপেক্ষায়। বেশীরভাগ কেন্দ্রে দুপুর একটার মধ্যে ৬০ শতাংশ ভোট পড়ার কথা জানান সংশ্লিষ্ট প্রিজাইটিং কর্মকর্তারা।

জেলা শহর থেকে দুই কিলোমিটার দুরে পলাশবাড়ি ইউনিয়নের নীলফামারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। সকাল ১০টায় ওই কেন্দ্রে দেখা গেছে নারী ভোটারদের দীর্ঘ সাড়ি। এসময় ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা মো. জহির উদ্দিন বলেন, এ কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ২৭০৭। শুরুর দুই ঘণ্টার মধ্যে প্রায় ৬০০ ভোট পড়েছে।

একই ইউনিয়নে সকাল সাড়ে ১০টায় পলাশবাড়ি সরকারী  প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দেখা গেছে নারী ও পুরুষ ভোটারদের দীর্ঘ সাড়ি।

ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা গাওছুল আযম বলেন, ২০৩৭ ভোটের মধ্যে প্রায় ৮০০ ভোট পড়েছে।

সকাল ১১টায় লক্ষীচাপ ইউনিয়নের কচুয়া চৌরঙ্গী সেবা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দেখা যায় ভিন্ন চিত্র। সেখানে ভোটারের উপস্থিতি কম দেখা গেলেও নির্বাচনী কাজের সংশ্লিষ্টরা জানান সকালে দীর্ঘ সাড়ি  ছিল। ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা মো. আবতাবুজ্জামান বলেন, মোট ১৪২৪ ভোটের মধ্যে ৬৪০ ভোট পড়েছে। শুরুর সাথে ভোটারদের উপস্থিতি ছিল ছোখে পড়ার মতো।

বেলা ১২টার দিকে একই ইউনিয়নের ককই বড়গাছা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দেখা যায় ভোটার উপস্থিতি কম। ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা বাবুল হোসেন বলেন, ভোটার উপস্থিতি সকালের দিকে বেশী ছিল। দুপুরের পর আবারও বাড়তে পারে। ওই কেন্দ্রে ১৬৬০ ভোটের মধ্যে ৬০ শতাংশ ভোট পড়েছে ওই সময়ের মধ্যে। একই অবস্থা দেখা গেছে ইউনিয়নের শালমারা গোরেকপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে। সেখানে ১১৭২ ভোটের মধ্যে বেলা ১২টায় ৬০ শতাংশ ভোট পড়েছে বলে জানান প্রিজাইডিং কর্মকর্তা মো. আখতারুজ্জামান।

বেলা একটায় চওড়া বড়গছা ইউনিয়নের উত্তর চওড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ২২৯১ ভোটের মধ্যে ১৬০০ ভোট পড়েছে বলে জানান প্রিজাইডিং কর্মকর্তা এহছানুল হক।

আড়াইটার দিকে গোরগ্রাম ইউনিয়নের কিত্তনিয়া পাড়া দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে দেখা যায় একই চিত্র। ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা মো. রেশম আলী বলেন, ২১২৬ ভোটের মধ্যে ১৮০০ ভোট গ্রহন সম্পন্ন হয়েছে। এসয়ে কোথাও কোন ভোট কারচুপি বা অপ্রীতিকর কোনও ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

লক্ষ্মিচাপ ইউনিয়ন পরিষদের বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থী আশরাফ আলীর সঙ্গে দুপুর একটার দিকে কথা হলে তিনি বলেন,‘এখন পর্যন্ত সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ’

নীলফামারী সরের নির্বাচনের পাঁচ ইউনিয়ন পরিষদ হলো, চওড়া বড়গাছা, গোড়গ্রাম, পলাশবাড়ি,লক্ষ্মীচাপ ও পঞ্চপুকুর। এসব ইউনিয়নে মোট ভোটার ৮০ হাজার ৫৬৫ জন। ভোট কেন্দ্র  ৪৫টি। আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও স্বতন্ত্র ২৪ প্রতিদ্বন্দী চেয়ারম্যান প্রার্থী।

নীলফামারী সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবেত আলী বলেন,‘কোনও ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই নির্ধারিত সময়ে শান্তিপূর্ণ ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে। লক্ষীচাপ ইউনিয়নে জ্বাল ভোট দেয়ার চেষ্টার অভিযোগে এক জনের ৫শ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।


মন্তব্য