kalerkantho

বুধবার । ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ । ৫ মাঘ ১৪২৩। ১৯ রবিউস সানি ১৪৩৮।


তিন কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত

মাদারীপুরে সংঘর্ষে চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ আহত অর্ধশত

মাদারীপুর প্রতিনিধি    

৩১ মার্চ, ২০১৬ ১৮:১১



মাদারীপুরে সংঘর্ষে চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ আহত অর্ধশত

মাদারীপুরে ভোটগ্রহণের শুরুতেই ব্যাপক সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া, হামলা, ব্যালট ছিনতাই, বাক্স ভাঙচুর, গোলাগুলি, বোমাবাজি, ভোট বর্জনের মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় দফা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন আজ  বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হয়। সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের ভোটকেন্দ্র ও কেন্দ্রের বাইরে সংঘর্ষ-হামলায় চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ অর্ধশত আহত হয়েছে।

আহতদের মাদারীপুর সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি ও প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে দুইজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদেরকে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ঘটমাঝি ইউনিয়নের তিন কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করে নির্বাচন সংশ্লিষ্টদের প্রত্যাহার করে নিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। সরেজমিন আহত, পুলিশ ও সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা গেছে, আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে বেলা ১০টার মধ্যে মাদারীপুর সদর উপজেলার ঘটমাঝি ইউনিয়নের কুন্তিপাড়া, করদী ও ছয়না কেন্দ্রে সরকারদলীয় ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ বাঁধে।

এ সময় কেন্দ্র দখল করে ব্যালট বাক্স ভাঙচুর ও ব্যালট পেপার ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৯ রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ছয়জনকে আটক করেছে।

কুন্তিপাড়া, করদী ও ছয়না (৬, ৭ ও ৯ নং ওয়ার্ড) কেন্দ্রে ব্যালট বাক্স ছিনতাই ও পুনরায় সংঘর্ষের আশঙ্কায় ওই তিন কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করে নির্বাচন সংশ্লিষ্টদের প্রত্যাহার করে নিয়ে গেছে কর্তৃপক্ষ। মস্তফাপুর ইউনিয়নের তাঁতীবাড়ি কেন্দ্রে ব্যাপক বোমাবাজির ঘটনায় ১০ জন আহত হয়। আহতদের মাদারীপুর সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। গুরুতর হওয়ায় দুইজনকে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ ছাড়া মস্তফাপুর ইউনিয়নের নওহাটা কেন্দ্রে সংঘর্ষে আহত হয় পাঁচজন। এসব কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি ভালো থাকলেও সংঘর্ষের কারণে ভোটাররা ভোটকেন্দ্র ত্যাগ করে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনলেও ভোটারশূন্য হয়ে পড়ে কেন্দ্রগুলো।

খোয়াজপুর ইউনিয়নের কয়েকটি কেন্দ্র থেকে এজেন্ট বের করে দেওয়াসহ ভোট কারচুপির অভিযোগে বিএনপি সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী রোমান সরদার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নির্বাচন বর্জন করেন। পাঁচখোলা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী আ. রশীদ গৌড়াকে জাফরাবাদ নামক স্থানে বসে দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে আহত করেছে। তাকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ছাড়া জাফরাবাদ, পাঁচখোলা, খোয়াজপুরসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে সংঘর্ষ  ও হামলায় অর্ধশত লোক আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। মাদারীপুর সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত ডা. মাহমুদ হোসেন বলেন, "সংঘর্ষের ঘটনায় বিকেল পর্যন্ত ১৬ জনকে ভর্তি করা হয়েছে। রোগী আসা অব্যাহত রয়েছে। তাদের চিকিৎসা দিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে।

মাদারীপুর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সরোয়ার হোসেন বলেন, "ঘটমাঝি ইউনিয়নের তিনটি ভোটকেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। অন্যান্য ইউনিয়নের নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়েছে। "

 


মন্তব্য