kalerkantho


ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান

অবৈধভাবে পানি বিক্রি ও পানি উত্তোলন, কারাদণ্ড-জরিমানা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৯ মার্চ, ২০১৬ ২২:৪১



অবৈধভাবে পানি বিক্রি ও পানি উত্তোলন, কারাদণ্ড-জরিমানা

ওয়াসার লাইসেন্স না নিয়ে গভীর নলকূপ স্থাপন ও গণশৌচাগারের পানি বাণিজ্যিকভাবে বিক্রির দায়ে চট্টগ্রামের স্টেশন রোড এলাকায় মীর হোসেন নামের এক ব্যক্তিকে ১০ দিনের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সঙ্গে তাঁকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ ছাড়াও নগরের আরও কয়েকটি এলাকায় অভিযান চালিয়ে বকেয়া বিল, অবৈধ সংযোগ ও ​অবৈধভাবে পাম্প ব্যবহারের দায়ে তিনটি সংযোগ বিচ্ছিন্ন ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার চট্টগ্রাম ওয়াসার নির্বাহী হাকিম হিল্লোল বিশ্বাসের  নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় ওয়াসার রাজস্ব কর্মকর্তা তৌহিদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে নির্বাহী হাকিম হিল্লোল বিশ্বাস বলেন, মো. ইসমাইল নামের এক ব্যক্তি চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের কাছ থেকে নগরের স্টেশন রোড এলাকায় একটি গণশৌচাগার ইজারা নেন। ইজারার ৮ নম্বর শর্তই ছিল, তিনি গণশৌচাগারের পানি বাণিজ্যিকভাবে বাইরে বিক্রি করতে পারবেন না। কিন্তু এ শর্ত ভঙ্গ করে দীর্ঘদিন ধরে তিনি বাইরে পানি বিক্রি করছিলেন। যে গভীর নলকূপ থেকে গণশৌচাগারটিতে পানি সরবরাহ ও বিক্রি করা হতো, সেটিরও লাইসেন্স নেই। গভীর নলকূপের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।

তিনি জানান, অভিযানের সময় মো. ইসমাইলকে পাওয়া যায়নি।

তবে গণশৌচাগারের ব্যবস্থাপক মীর হোসেনকে পাওয়া যাওয়ায় তাঁকে কারাদণ্ড ও জরিমানা করা হয়েছে। ইজারার শর্ত ভঙ্গের বিষয়টি ওয়াসার পক্ষ থেকে সিটি করপোরেশনকে জানানো হবে।

চট্টগ্রাম ওয়াসা সূত্র জানায়, স্টেশন রোড ছাড়াও নগরের মাঝিরঘাট, আলকরণ ও লালখান বাজার এলাকায় অভিযান চালান ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় দুই লাখ ৪৩ হাজার টাকা বকেয়া থাকায় তিনটি সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। এছাড়া অবৈধভাবে দুটি পাম্প দিয়ে পানি উত্তোলনের দায়ে মাঝিরঘাটে একটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানকে ১০ হাজার টাকা ও আবাসিক সংযোগ নিয়ে বাণিজ্যিকভাবে পানি ব্যবহারের কারণে লালখান বাজার মোড়ের তাওয়াক্কুল হোটেল ও স্টেশন রোডের পূরবী সুইটসকে পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে।


মন্তব্য