kalerkantho


ইউএনও'র প্রত্যাহার দাবি

তিতাসে স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান বর্জন

   

২৬ মার্চ, ২০১৬ ১৭:৩৭



তিতাসে স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান বর্জন

কুমিল্লার তিতাসে মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে উপজেলা মাঠে আয়োজিত অনুষ্ঠান বর্জন করেছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য। একই সঙ্গে অনুষ্ঠান বর্জন করেছে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড ও আওয়ামী লীগ।

মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের অসম্মান করার প্রতিবাদে নেতৃবৃন্দ অনুষ্ঠান বর্জন করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোসা. মুকিমা বেগমকে প্রত্যাহারের দাবিতে উপজেলা ভবনের ফটকে  আধা ঘণ্টাব্যাপী অবস্থান করেন।

স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, তিতাস উপজেলা প্রশাসন মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে উপজেলা মাঠে মুক্তিযোদ্ধা ও সকল শ্রেণির নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। প্রথম পর্বে কুচকাওয়াজ ও বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থীদের শারীরিক কসরত প্রদর্শন শেষ করে মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা  অনুষ্ঠানের কথা ছিল। কিন্তু উপজেলা প্রশসন দ্বিতীয় পর্বের অনুষ্ঠানের  শুরুতে স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদদের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা না দেওয়ায় সকল মুক্তিযোদ্ধা অনুষ্ঠান বর্জন করেন। পরে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ অনুষ্ঠান বর্জন করে বিক্ষোভ মিছিলসহ  উপজেলা ভবনের প্রবেশদ্বারে অবস্থান নেন। এ সময় বিক্ষুব্ধ  মুক্তিযোদ্ধারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার দাবি করে বিক্ষোভ মিছিল করে।

সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আমির হোসেন ভূঁইয়া বলেন, "উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহান স্বাধীনতা দিবসে মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদদের প্রতি যে অসম্মান দেখিয়েছেন তা প্রজাতন্ত্রের একজন কর্মচারী হিসেবে দুঃখজনক। মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে আমিও অনুষ্ঠান বর্জন করি। বিষয়টি আমি উর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে জানাবো।

" তিতাস উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোসা. মুকিমা বেগম বলেন, "প্রথম পর্বের অনুষ্ঠান শেষে দ্বিতীয় পর্বের অনুষ্ঠান শুরম্ন হলে মুক্তিযোদ্ধরা হই-হুল্লোড় শুরু করেন। শহীদদের আত্মার শান্তি কামনায় এক মিনিট নীরবতা পালন করার মতো সময় তাঁরা আমাকে দেননি। তাদেরকে সম্মাননা জানানোর আগেই সবাই আনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন। "

 


মন্তব্য