kalerkantho

শনিবার । ২১ জানুয়ারি ২০১৭ । ৮ মাঘ ১৪২৩। ২২ রবিউস সানি ১৪৩৮।


নোয়াখালীতে ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে গুলি, নিহত ১

নিজস্ব প্রতিবেদক, নোয়াখালী   

২১ মার্চ, ২০১৬ ২২:৫৭



নোয়াখালীতে ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে গুলি, নিহত ১

ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে নিজ দলের কর্মীদের হাতে গুলিতে নিহত হয়েছে নোয়াখালী কলেজ ছাত্রলীগের কর্মী রাজিব(২২)। এ ঘটনায় গুলিবৃদ্ধ হয়েছেন ছাত্রলীগের জেলা কমিটির সদস্য ওয়াসিম( ২৪) ও ছাত্রলীগ কর্মী ইয়াছিন(২০)। তাদেরকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আজ সোমবার রাত সাড়ে ৮টায় নোয়াখালী পুরাতন কলেজ সংলগ্ন অনন্তপুর গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, আজ সোমবার বিকেলে মাঠে ফুটবল খেলা নিয়ে পুরাতন নোয়াখালী কলেজ সংলগ্ন অনন্তপুর গ্রামের ছাত্রলীগ কর্মী সৌরভের সাথে ছাত্রলীগ কর্মী ইয়াছিনের বিরোধ হয়। এ সময় কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সৌরভকে মারধর করে ইয়াছিনের লোকজন। পরে রাতে এ ঘটনার মিমাংশার জন্য বৈঠকের ব্যবস্থা করা হয় পুরাতন কলেজ সংলগ্ন অনন্তপুর গ্রামে। সেখানে ইয়াছিন জেলা ছাত্রলীগের সদস্য ওয়াসিমকে সহ তার সমর্থকদের নিয়ে আসে। বৈঠকে সৌরভও তার ফুফাতো ভাই সাজুর নেতৃত্বে একদল ক্যাডারকে নিয়ে আসে। বৈঠকের এক পর্যায়ে সাজু অস্ত্র বের করে ওয়াসিমকে লক্ষ করে গুলি চালায়। এতে ঘটনাস্থলেই গুলিতে ছাত্রলীগকর্মী রাজিবের মৃত্যু ঘটে। এ সময়ে গুলিতে জেলা ছাত্রলীগের সদস্য  ওয়াসিম ও ছাত্রলীগকর্মী ইয়াছিন আহত হয়। তাদের দুজনকে প্রথমে নোযাখালী জেনারেল হাসপাতালে এবং পরে অবস্থার অবনতি হলে তাদের ঢাকায় পাঠানো হয়। এদের মধ্যে ওয়াসিমের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

এদিকে রাজিবের মামা পলাশ জানান, আমার ভাগিনা কোন দল করত না। সে অপরাজনীতির স্বীকার, সে মা-বাবার একমাত্র মেধাবী সন্তান। ছাত্রলীগের নেতা ওয়াসিমের সঙ্গে সখ্যতা থাকার কারণে তার অন্য বন্ধুদের সাথে সে সেখানে গিয়ে এখন লাশ হয়ে ফিরে আসল।

নোয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ইমন ভট্র জানান, নিহত রাজিব আমাদের ছেলেদের সাথে চলত। তবে সে কোন কমিটিতে নেই।

 


মন্তব্য