kalerkantho


শেরপুরে শিশু রাহাত হত্যা মামলার রায় ২৯ মার্চ

শেরপুর প্রতিনিধি   

২০ মার্চ, ২০১৬ ২০:২০



শেরপুরে শিশু রাহাত হত্যা মামলার রায় ২৯ মার্চ

শেরপুরে চাঞ্চল্যকর শিশু রাহাত হত্যা মামলার যুক্তিতর্ক আজ রবিবার শেষ হয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে আগামী ২৯ মার্চ শেরপুরের বহুল আলোচিত এ মামলাটির রায়ের তারিখ ঘোষণা করেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. সায়েদুর রহমান খান। এ সময় হাজতি আসামি আসলাম বাবু, রবিন মিয়া, আব্দুল লতিফ ও ইমরান হোসেন আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে ট্রাইব্যুনালের পিপি অ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুলু জানান, আজ রবিবার উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে ট্রাইব্যুনালের বিচারক আগামী ২৯ মার্চ চাঞ্চল্যকর শিশু রাহাত হত্যা মামলার রায়ের দিন ধার্য্য করেন। এ মামলার চার আসামির সর্বোচ্চ সাজা হবে বলে আশাবদ ব্যক্ত করেন তিনি।

আদালত সূত্রে জানা যায়, যুক্তিতর্কে এদিন রাষ্ট্রপক্ষে পিপি অ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুলু ছাড়াও অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত উল্লাহ তারা ও অ্যাডভোকেট পংকজ কুমার নন্দি অংশগ্রহণ করেন। অপরদিকে আসামিপক্ষে হাইকোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আব্দুস সোবাহান তরফদার, অ্যাডভোকেট নারায়ন চন্দ্র হোড়, অ্যাডভোকেট আব্দুর রউফ মিয়া যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন।

প্রসঙ্গত: গত বছরের ২ আগষ্ট বিপ্লব-লোপা মেমোরিয়াল স্কুলের প্রথম শ্রেণির ছাত্র ও শহরের গৃর্দানারায়নপুর মহল্লার কাঠ ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম খোকন মিয়ার একমাত্র ছেলে রাহাতকে তার আপন খালু আব্দুল লতিফ ও তার সহযোগীরা অপহরণ করে দুই লাখ টাকা মুক্তিপন দাবি করে। কিন্তু মুক্তিপন দাবির আগেই শিশুটিকে মধুটিলা ইকোপার্ক সংলগ্ন একটি পাহাড়ি টিলায় নিয়ে গলাটিপে হত্যা করে গহীন জঙ্গলে ফেলে দেওয়া হয়। অপহরণের ছয় দিন পর ওই পাহাড়ি টিলার জঙ্গল থেকে শিশুটির কঙ্কাল উদ্ধার করে পুলিশ। পরে গ্রেপ্তার হওয়া আসামি লতিফ, আসলাম বাবু, রবিন মিয়া ও ইমরান হোসেন শিশু রাহাত অপহরণ ও হত্যার সাথে তাদের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

 


মন্তব্য