kalerkantho

রবিবার। ২২ জানুয়ারি ২০১৭ । ৯ মাঘ ১৪২৩। ২৩ রবিউস সানি ১৪৩৮।


মনোনয়নপত্র ছিনতাইয়ের অভিযোগ

বাগেরহাটের মূলঘর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন স্থগিত

বাগেরহাট প্রতিনিধি   

১৭ মার্চ, ২০১৬ ১৯:১১



বাগেরহাটের মূলঘর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন স্থগিত

বাগেরহাটের ফকিরহাটের মূলঘর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন স্থগীত করেছে নির্বাচন কমিশন। একজন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় ছিনতাইয়ের অভিযোগ প্রাথমিক ভাবে প্রমানিত হওয়ায় কমিশন ওই ইউনিয়নের নির্বাচন স্থগীত করেন। একই সঙ্গে মনোনয়নপত্র ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ তদন্তে কমিটি গঠন করেছে কমিশন। বুধবার রাতে নির্বাচন কমিশনের এক আদেশে ওই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে বলে বাগেরহাট জেলা নির্বাচন অফিসার নিশ্চিত করেছেন।

বাগেরহাট জেলা নির্বাচন অফিসার মো. রুহুল আমিন মল্লিক জানান, মূলঘর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে খান আক্তারুজ্জামান মন্টু নামে একজন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করলেও রিটানিং অফিসারের কাছে জমা দিতে পারেনি। ২২ ফেব্র“য়ারি মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে মর্মে আক্তারুজ্জামান তার কাছে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন।

নির্বাচন অফিসার মো. রুহুল আমিন মল্লিক আরো জানান, তার প্রাথমিক তদন্তে খান আক্তারুজ্জামান মন্টুর মনোনয়নপত্র ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগের সত্যতা মিলেছে। মনোনয়পত্র ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় তিনি মূলঘর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন স্থগিতের জন্য কমিশনের কাছে সুপারিশ করে ছিলেন। নির্বাচন কমিশন ওই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন স্থাগীত করেন এবং একই সঙ্গে নির্বাচন কমিশনের উপসচিব ফরহাদ আহম্মেদকে প্রধান করে এক সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বলে নির্বাচন অফিসার জানান।

মনোনয়নপত্র জমা দিতে না পারা খান আক্তারুজ্জামান মন্টুর অভিযোগ,স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে ২২ ফেব্রুয়ারি সে তার লোকজন নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার জন্য ফকিরহাট উপজেলা সদরে রিটানিং অফিসারের কার্যালয়ে যায়। রিটার্নিং অফিসারের কক্ষের সামনে পৌছাতেই ২০ থেকে ২৫ জনের একদল সন্ত্রাসী তাকে মনোনয়নপত্র জমা না দেওয়ার জন্য হুমকি দেয় এবং মনোনয়নপত্র ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে সে রিটানিং অফিসারের টেবিলে মনোনয়নপত্র রাখার পর সেখান থেকে কয়েকজনে তাঁর মনোনয়নপত্র ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

খান আক্তারুজ্জামান মন্টু আরো অভিযোগ করে বলেন, তার ছোট ভাই খান আরিফুজ্জামান স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে তার সমর্থনে (ড্যামি) মনোনয়নপত্র জমা দিতে গিয়ে ছিল। সন্ত্রাসীরা তার ভাইয়ের মনোনয়নপত্রও ছিনিয়ে নিয়েছে।

খান আক্তারুজ্জামান মন্টু জানান, তার মনোনয়নপত্র ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় সে প্রার্থী হতে না পারায় জেলা নির্বাচন অফিসারের কাছে লিখিত ভাবে অভিযোগ দাখিল করেন। ওই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পুনরায় তফশীল ঘোষণা হলে তিনি চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হবেন বলে জানান। এক সময় খান আক্তারুজ্জামান মন্টু বিএনপির একজন কর্মী থাকলেও এখন তিনি কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত নয় বলে জানান।

প্রসঙ্গত, প্রথম দফায় ২২ মার্চ বাগেরহাটের ৭৪টি ইউনিয়নে নির্বাচনের জন্য তফশিল ঘোষণা করা হয়। ঘোষিত তফশিল অনুযায়ী গত ২২ ফেব্রুয়ারি মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ছিল। ফকিরহাটের মূলঘর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত এ্যাডভোকেট হিটলার গোলদার একক প্রার্থী ছিলেন। এছাড়া বাগেরহাটের আরো ৩২টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের এক প্রার্থী থাকায় তারা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন বলে জেলা নির্বাচন অফিস জানান।
 


মন্তব্য