kalerkantho


টাকা দাবির অভিযোগ: পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীর মামলা

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি   

১৭ মার্চ, ২০১৬ ১৮:০৬



টাকা দাবির অভিযোগ: পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীর মামলা

লক্ষ্মীপুরের রায়পুর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) হারুনুর রশিদের বিরুদ্ধে এক ব্যবসায়ী মামলা করেছেন। গত বুধবার বিকালে লক্ষ্মীপুর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম (রায়পুর) আদালতে রায়পুরের দেনায়েতপুর এলাকার মাংস ব্যবসায়ী মুনছুর আহমেদ মুন্সী বাদী হয়ে এ মামলা করেন। আদালত বিষয়টি উপজেলা সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) তদন্ত করার নির্দেশ দেন।

বাদীর অভিযোগ, চোরা গরুর মাংস বিক্রির অভিযোগ তুলে ওই পুলিশ কর্মকর্তা হুমকি দিয়ে তিন দফা তাঁর কাছ থেকে ৫৫ হাজার টাকা আদায় করেন। পরে আরও ২০ হাজার টাকা দাবি করেন। ওই টাকা না দিলে ডাকাতির মামলার আসামি করার হুমকি দেওয়া হয়।

মামলার এজাহারে বলা হয়, এসআই হারুনুর রশিদ গত ২৪ ফেব্রুয়ারি মুনছুর আহমেদের দোকানের প্রায় দুই মণ মাংসসহ কর্মচারি মো. মাসুদকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। মুনছুর কর্মচারির জন্য থানায় গেলে হারুন ৭০ হাজার টাকা দাবি করেন। নগদে পাঁচ হাজার টাকা দিলে কর্মচারিকে ছেড়ে দেয়। পরদিন তিনি ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে ৩০ হাজার টাকা দেন। চার-পাঁচ দিন পর ধার-দেনা করে আরও ২০ হাজার টাকা পরিশোধ করেন। গত কয়েক দিন ধরে হারুন আরও ২০ হাজার টাকা দাবি করছেন। এ টাকা না দিলে তাঁকে ডাকাতির মামলার আসামি করার হুমকি দেয়া হয়।

বাদী মুনছুর আহমেদ মুন্সির বলেন, উপজেলার বাহার মোল্লার হাট থেকে ৩০ হাজার টাকা দিয়ে গরু কিনে জবাই করেছি। ওই গরু কেনার রশিদও আমার কাছে আছে। পুলিশের হুমকির কারণে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন।

রায়পুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) হারুনুর রশিদ বলেন, মামলা করার বিষয়টি শুনেছি। দক্ষিণ দেনায়েতপুর গ্রামের মাহমুদুর রহমান থানায় গরু চুরির অভিযোগ করেন। পরে মুনছুরের দোকান থেকে ওই গরুর মাংস উদ্ধার করা হয়। স্থানীয় ব্যক্তিদের সমঝোতায় মুনছুর ওই গরুর ক্ষতিপূরণ বাবত ৭০ হাজার টাকা দিতে রাজি হয়। আমি তাঁর কাছ থেকে কোনো টাকা নেইনি। ডাকাতি মামলার আসামি করা হুমকি দেওয়ার অভিযোগও সঠিক নয়।


মন্তব্য