kalerkantho

বুধবার । ২৫ জানুয়ারি ২০১৭ । ১২ মাঘ ১৪২৩। ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৮।


নাটোরে পিস্তল ও গুলি রাখায় এক ব্যক্তির ১৭ বছর কারাদণ্ড

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ মার্চ, ২০১৬ ১৭:৪৯



নাটোরে পিস্তল ও গুলি রাখায় এক ব্যক্তির ১৭ বছর কারাদণ্ড

অবৈধ পিস্তল ও গুলি রাখার দায়ে আরিফুল ইসলাম বিশ্বাস নামের এক ব্যক্তিকে ১৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ বুধবার দুপুরে নাটোরের বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক রেজাউল করিম এ রায় দেন।

একই সঙ্গে মামলার অপর দুই আসামিকে খালাস দেওয়া হয়েছে। কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আরিফুলের বাড়ি নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়া মহল্লায়।

নাটোরের বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-১ সূত্রে জানা যায়, বিদেশি একটি পিস্তল রাখার দায়ে আরিফুলকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও দুটি গুলিসহ একটি ম্যাগজিন রাখার দায়ে তাকে ৭ বছর সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। একটা সাজা শেষ হওয়ার পর অপরটি কার্যকর হবে। তবে ইতিমধ্যে যত দিন তিনি হাজত খেটেছেন তা এই সাজা থেকে বাদ যাবে। অস্ত্র আইনে দায়ের করা মামলায় দুটি ধারায় এ দণ্ড দেওয়া হয়। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় রুবেল হোসেন ও আবুল কাশেম নামের দুজনকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ২০১৩ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি রাতে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৫) এর উপসহকারী পরিচালক কামাল হোসেন ও তাঁর সহকর্মীরা বড়াইগ্রামের বনপাড়া থেকে আরিফুল ইসলাম ও রুবেল হোসেনকে আটক করেন। এ সময় আবুল কাশেম পালিয়ে যান। পরে তল্লাশি চালিয়ে আরিফুলের প্যান্টের পকেট থেকে বিদেশি একটি পিস্তল ও দুটি গুলিসহ একটি ম্যাগজিন জব্দ করা হয়। এ ব্যাপারে বড়াইগ্রাম থানায় মামলা হয়। থানার উপপরিদর্শক (এসআই) নুরুজ্জামান তদন্ত শেষে তিন আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। মামলায় মোট ১৪ জন সাক্ষ্য দেন।

রায়ের প্রতিক্রিয়ায় সরকার প‌ক্ষের কৌসুঁলি সিরাজুল ইসলাম জানান, আদালতের রায়ে অবৈধ অস্ত্রবাজরা শিক্ষা পাবে।

এদিকে আসামি পক্ষের আইনজীবী সাখাওয়াত হোসেন জানান, তাঁর মক্কেল ন্যায়বিচার পাননি। তিনি এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন।

 


মন্তব্য