kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৪ জানুয়ারি ২০১৭ । ১১ মাঘ ১৪২৩। ২৫ রবিউস সানি ১৪৩৮।


পাকিস্তানে 'পাচার হওয়া' অর্থ ফিরিয়ে আনতে হবে : নৌমন্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ মার্চ, ২০১৬ ২০:৩০



পাকিস্তানে 'পাচার হওয়া' অর্থ ফিরিয়ে আনতে হবে : নৌমন্ত্রী

বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর পাকিস্তানে ‘পাচার হওয়া’ ৩৫ হাজার কোটি টাকা ফেরত আনার দাবি জানিয়েছেন নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান। সরকারের কর্তাব্যক্তিদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে মন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতার পর স্টেট ব্যাংক অব পাকিস্তান ঢাকা শাখা থেকে পাকিস্তানে ৩৫ হাজার কোটি টাকা নিয়ে গেছে, যা বাংলাদেশের সম্পদ।

এ অর্থ ফিরিয়ে আনতে হবে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রাম বন্দরে বাংলাদেশ-ভারত কোস্টাল শিপ প্রটোকল চুক্তির আওতায় পণ্যবাহী প্রথম জাহাজ চলাচল উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

শাজাহান খান বলেন, পাকিস্তান ১৯৫২ ও ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছিল। এখনো ঠিক একইভাবে তারা বাংলাদেশের শান্তি নষ্ট করতে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। তারা আমাদের অস্থির করতে নানা ধরনের পাঁয়তারা করছে। তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে তারা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতিকে হুমকিতে ফেলতে চেয়েছিল। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধেও তারা ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। যতই ষড়যন্ত্র করুক না কেন বাংলাদেশ জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসের কাছে কখনো মাথা নত করবে না।

২০১৫ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঢাকা সফরকালে যে তিনটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছিল তার মধ্যে প্রথমেই কোস্টাল শিপিং প্রটোকল চুক্তিটি আজ মঙ্গলবার কার্যকর হল। ওই দিনটিকে ‘ঐতিহাসিক’ আখ্যা দিয়ে নৌমন্ত্রী বলেন, ১৯৭৪ সালের ১৬ মে ইন্দিরা-মুজিব চুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যকার বাণিজ্যিক সম্পর্কে নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে।

বন্দরের এনসিটিতে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কমডোর জুলফিকার আজিজ। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাদারীপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য নুর-ই-আলম চৌধুরী, নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় কমিটির সদস্য এম এ লতিফ এমপি, ভারতীয় প্রথম সহকারী হাইকমিশনার রাকেশ রুমন, নৌ-মন্ত্রণালয়ের সচিব অশোক মাধব রায়।

 


মন্তব্য