kalerkantho

26th march banner

জাবিতে র‌্যাগিংয়ের শিকার হয়ে শিক্ষার্থী অসুস্থ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ মার্চ, ২০১৬ ২৩:১৭



জাবিতে র‌্যাগিংয়ের শিকার হয়ে শিক্ষার্থী অসুস্থ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) মীর মশাররফ হোসেন হলে ‘র‌্যাগিংয়ের শিকার হয়ে’ অসুস্থ হয়ে পড়েছেন প্রথম বর্ষের এক শিক্ষার্থী। গতকাল রবিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকের হলের গণরুমে এ ঘটনা ঘটে।

অসুস্থ হয়ে পড়া ওই শিক্ষার্থীর নাম শরীফুল ইসলাম। তিনি রসায়ন বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র। তাঁকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গতকাল রাত ১০টার দিকে ৪৪তম ব্যাচের টিটু (দর্শন), রিসান (দর্শন), সৈকত (দর্শন), দেলোয়ার হোসেন (রসায়ন), মামুন (পরিসংখ্যান), সিফাত (পরিবেশবিজ্ঞান), রুহিনসহ (পরিবেশবিজ্ঞান) হলের জুনিয়র ছাত্রলীগকর্মীরা গণরুমে প্রবেশ করেন। এ সময় তাঁরা প্রথম বর্ষের শতাধিক শিক্ষার্থীকে দাঁড় করিয়ে রাখেন। দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকার কারণে শরীফুল ইসলাম অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাঁর সহপাঠী ও গণরুমে প্রবেশকারী ৪৪ ব্যাচের কয়েকজন মিলে তাঁকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিক্যাল সেন্টারে নিয়ে যান।

এ বিষয়ে মেডিক্যাল সেন্টারের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. শাহ মো. এজাজুল হক বলেন, সাইনোসাইটিসের সমস্যা থাকায় ওই শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে রুহিন র‌্যাগ দেওয়ার কথা অস্বীকার করে বলেন, ওর সাইনোসাইটিসের সমস্যা থাকায় হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে। ওরা সম্ভবত তখন খাচ্ছিল। পরে ওর বন্ধুরা আমাদের জানালে আমরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাই।

শরিফুল অসুস্থ হওয়ার সময় ৪৪ ব্যাচের কেউ গণরুমে ছিল না বলেও জানান রুহিন।

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শরিফুলের কয়েকজন সহপাঠী জানান, গণরুমে র‌্যাগ চলাকালীন সময়েই শরিফুল অসুস্থ হয়ে পড়েন। শনিবার গভীর রাত পর্যন্ত ছাত্রলীগকর্মীরা প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের বিভিন্নভাবে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনসহ অকথ্য ভাষায় উচ্চস্বরে গালাগাল করেছেন বলেও জানিয়েছেন তাঁরা।

এর আগে গত শুক্রবার রাতে প্রথম বর্ষের নবীন শিক্ষার্থীদের খোঁজখবর নিতে গিয়ে শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হাতে লাঞ্ছিত হন বিশ্ববিদ্যালয়ের মীর মশাররফ হোসেন হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ওবায়দুর রহমান।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে হল প্রাধ্যক্ষের সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করেও কথা বলা যায়নি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক তপন কুমার সাহা বলেন, ‘বিষয়টি জেনেছি। আমাদের প্রক্টোরিয়াল টিমের সদস্যরা এ বিষয়ে খোঁজখবর নিচ্ছেন। ’


মন্তব্য