kalerkantho


পাঁচ ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচন

শেরপুরে ৯ চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ মার্চ, ২০১৬ ২২:২৪



শেরপুরে ৯ চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার

শেরপুরে দ্বিতীয় ধাপের পাঁচ ইউপি নির্বাচনে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে ৯ চেয়ারম্যান প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এদিকে, নকলা উপজেলার ১ নম্বর গণপদ্দি ইউনিয়নে কোন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শামছুর রহমান আবুল বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে চলেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে আজ রবিবার শ্রীবরদী উপজেলার ৩ ইউনিয়নে ৭ জন এবং নকলার দুই ইউনিয়নে ২ জন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন। তন্মধ্যে একজন রয়েছেন বাংলাদেশ ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন মনোনীত প্রার্থী, অন্যরা বিএনপি-আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী।

শ্রীবরদীর গড়জরিপা ইউনিয়নে মনোনয়ন প্রত্যাহারকারী চারজন হলেন-ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের ফজলুল হক, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আশরাফুল আলম, আব্দুল কাদির ও আব্দুল খালেক। খড়িয়া কাজীর চর ইউনিয়নে দুজন হলেন- স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল মান্নান ও মো, হাবীবুর রহমান এবং কুড়িকাহনিয়া ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আমিরুল্লাহ।

নকলার ২ নম্বর নকলা ইউনিয়নে মনোনয়ন প্রত্যাহারকারী হলেন বিএনপির বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহিনুর রহমান শাহিন। এ ছাড়াও একই উপজেলার ৭ নম্বর টালকি ইউনিয়নে আরেক মনোনয়ন প্রত্যাহারকারী হলেন বিএনপির বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী মহিউদ্দিন বুলবুল।


এদিকে, নকলা উপজেলার ১ নং গনপদ্দী ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শামছুর রহমান আবুলের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে জমা দেওয়া বিএনপি প্রার্থী মো. আবু সাঈমের উপযুক্ত বয়স না হওয়ার কারণে তার প্রার্থীতা যাচাই-বাছাইকালে বাতিল হয়ে যায়। এতে এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনীত মো. শামছুর রহমান আবুল একমাত্র বৈধ প্রার্থী। তার নির্বাচিত হওয়ার বিষয়টি এখন শুধুমাত্র অনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা দেওয়ার অপেক্ষা।

অপরদিকে, নকলা উপজেলার ৩ নম্বর উরফা ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সুজন মিয়ার বয়স কম হওয়ায় সাইজুল ইসলাম বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পুনরায় ইউপি সদস্য নির্বাচিত হচ্ছেন। ব্যাংক ঋণ থাকায় একই ইউনিয়নের ৯নম্বর ওয়ার্ডের গেন্দু মিয়ার মনোনয়নপত্র স্থগিত করা হয়। এর ফলে গেন্দু মিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল হলে এখানে সাইজুল ইসলামও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ইউপি সদস্য নির্বাচিত হচ্ছেন।

উল্লেখ্য, দ্বিতীয় ধাপে আগামী ৩১ মার্চ শেরপুর জেলায় ১৬টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তন্মধ্যে সদর উপজেলায় একটি, নকলায় ৯টি ইউনিয়নের সবকটিতে এবং শ্রীবরদীতে ৬টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।


মন্তব্য