'গ্রামে থেকে যা দেখেছি যা শিখেছি'-335064 | সারাবাংলা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

শুক্রবার । ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১৫ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৭ জিলহজ ১৪৩৭


গণবিশ্ববিদ্যালয়

'গ্রামে থেকে যা দেখেছি যা শিখেছি' শীর্ষক অভিজ্ঞতা বিনিময়

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

১২ মার্চ, ২০১৬ ১৫:৩৩



'গ্রামে থেকে যা দেখেছি যা শিখেছি' শীর্ষক অভিজ্ঞতা বিনিময়

চিকিৎসকদের গ্রামে গিয়ে কাজ করার মানসিকতা তৈরিতে 'এক মাস গ্রামে থেকে যা দেখেছি যা শিখেছি' শীর্ষক এক অভিজ্ঞতা বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে সাভারে।

গণবিশ্ববিদ্যালয়ের গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিক্যাল কলেজ আজ শনিবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয় মিলনায়তনে এ অভিজ্ঞতা বিনিময় সভার আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিক্যাল কলেজের এমবিবিএস ২১তম ব্যাচ ও গণবিশ্ববিদ্যালয়ের ফিজিওথেরোপি ২৯তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা গ্রামীণ ওরিয়েন্টেশনকালীন অর্জিত অভিজ্ঞতা উপস্থাপন করেন।  

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিরেন বিশ্ব ব্যাংকের জ্যেষ্ঠ স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. বুসরা বিনতে আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হেলথ সিস্টেমের টিম লিডার ডা. ভেলেরিয়া ডি অলিভেরিয়া ক্রুজ। প্রধান আলোচক হিসেবে বিশিষ্ট অথনীতিবিদ ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. হোসেন জিল্লুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গণবিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মেসবাহউদ্দিন আহমেদ।

প্রধান অতিথি বিশ্ব ব্যাংকের জ্যেষ্ঠ স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. বুসরা বিনতে আলম বলেন, "গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃক আয়োজিত শিক্ষার্থীদের গ্রামীণ জীবন ব্যবস্থা থেকে জানার এ প্রয়াস শুধু শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ জীবনের পাথেয় হবে তা নয়, আমাদের আইনপ্রণেতাদেরও চোখ খুলে দেবে। তাদের দৃষ্টিভঙ্গিতেও পরিবর্তন আনতে সহায়ক হবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ও অর্থনীতিবিদ ড. হোসেন জিল্লুর রহমান বলেন, "স্বাস্থ্য খাতে বাংলাদেশের অনেক উন্নতি হলেও চিকিৎসাব্যয় এখনও সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে। এ কারণে বেশির ভাগ মানুষ এখনও স্বাস্থ্যসেবার মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত। হোসেন জিল্লুর বলেন, "একজন ভালো চিকিৎসক হতে হলে শুধু চিকিৎসাশাস্ত্রই নয়, গ্রামের মানুষের আর্থ সামাজিক অবস্থা ও দেশের সঠিক ইতিহাস সম্পর্কে জানতে হবে। কারণ গ্রামীণ মানুষের সামাজিক অবস্থা সম্পর্কে না জানলে কোনোভাবেই সঠিক চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব নয়।"

সম্প্রতি তিনটি অঞ্চলে বিভক্ত হয়ে গণবিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা বিভাগ ও ফিজিওথেরাপি বিভাগের ভোলা জেলার চরফ্যাশন, ফেনীর সোনাগাজী ও দিনাজপুরের কাহারুল এলাকার প্রত্যন্ত অঞ্চল পরিদর্শন করে। মাসব্যাপী ওরিয়েন্টেশন চলাকালে শিক্ষার্থীরা ওই সব স্থানের সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যব্যবস্থাসহ অন্যান্য মৌলিক বিষয়ের সঙ্গে নিবিড়ভাবে কাজ করার সুযোগ পান।

শিক্ষার্থীরা চারটি দলে বিভক্ত হয়ে গ্রামীণ সামাজিক শ্রেণিবিন্যাস, স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের নিকট থেকে দেশ স্বাধীন হওয়ার ইতিহাস জানা, জেলা-উপজেলা-ইউনিয়ন ও কমিউনিটি পর্যায়ের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা সেবা এবং গ্রামীণ স্বাস্থ্য ও চিকিৎসাশিক্ষা নিয়ে পৃথক অভিজ্ঞতার কথা উপস্থাপন করেন। এ সময় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে থাকা শিক্ষকরাও তাঁদের নিজ নিজ অভিজ্ঞতা বর্নণা করেন। অনুষ্ঠানে ধামরাইয়ের সাবেক সংসদ সদস্য বেনজীর আহমেদ, গণস্বাস্থ্য ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান জাফর উল্লাহসহ আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

 

মন্তব্য