kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নলছিটি ইউপি নির্বাচন

বিএনপির চার কর্মীকে হাতুড়িপেটা, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে হামলা

ঝালকাঠি প্রতিনিধি    

১২ মার্চ, ২০১৬ ১৪:১৫



বিএনপির চার কর্মীকে হাতুড়িপেটা, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে হামলা

ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার মোল্লারহাট ইউনিয়নে গতকাল শুক্রবার রাতে বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীর চার কর্মীকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়েছে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও তাঁর কর্মীরা। এ সময় মোল্লারহাট চৌমাথায় বিএনপি প্রার্থী আবদুস ছালাম ও তাঁর সমর্থকদের তিনটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে হামলা ও ভাঙচুর চালানো হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মোল্লারহাটে বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আবদুস ছালাম হাইকোর্ট থেকে প্রার্থিতা বহালের আদেশ পেয়ে ঢাকা থেকে গতকাল শুক্রবার মোল্লারহাটে আসেন। দিনভর তিনি প্রচারণা করেন। রাতে স্থানীয় চৌমাথায় নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কর্মীদের নিয়ে বসেছিলেন তিনি। এ সময় আকস্মিকভাবে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী কবির হোসেন ও তার ভাই দেলোয়ার হোসেন লোকজন নিয়ে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর শুরু করেন। হামলাকারীরা হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে বিএনপি সমর্থক মো. লিটন, বেল্লাল হোসেন, আবদুল বারেক এবং মিজানুর রহমানকে আহত করেন। আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় বেল্লাল হোসেনকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ সময় পার্শ্ববর্তী লোকজন ছুটে এসে বিএনপির প্রার্থী আবদুস ছালামকে নিরাপদে বাড়িতে পৌঁছে দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে হামলাকারীরা বিএনপি প্রার্থী আবদুস ছালাম, বিএনপি সমর্থক বাবুল হোসেন ও মনির হোসেনের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে ভাঙচুর চালায়।

বিএনপি মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থী আবদুস ছালাম বলেন, "আমাকে মনোনয়নপত্র জমাদানেও বাধা প্রদান করেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী। পরে আমি হাইকোর্ট থেকে প্রার্থিতা বহালের আদেশ পাই। এরপর থেকেই ক্ষিপ্ত আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও তার কর্মীরা আমাকে নানা হুমকি দিয়ে আসছেন। আমার কর্মীদের প্রচারণায় বাধা দিচ্ছেন। গতকাল শুক্রবার রাতে আমার ও দুজন বিএনপি সমর্থকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা করেন তারা। চারজন কর্মীকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়েছেন।

তবে হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কবির হোসেন। তিনি বলেন, "দুই পক্ষের কর্মীদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়েছে। " কাউকে মারধর করা হয়নি বলে জানান তিনি। নলছিটি থানার ওসি মো. কামরুজ্জামান বলেন, মোল্লারহাটের ঘটনায় এখন‌ও কোনো পক্ষ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। "  

 


মন্তব্য