শেরপুরে প্রার্থী নির্বাচন নিয়ে আ.-334860 | সারাবাংলা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

শুক্রবার । ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১৫ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৭ জিলহজ ১৪৩৭


শেরপুরে প্রার্থী নির্বাচন নিয়ে আ. লীগের দু'পক্ষে সংঘর্ষ, আহত ১১

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ মার্চ, ২০১৬ ২৩:০১



শেরপুরে প্রার্থী নির্বাচন নিয়ে আ. লীগের দু'পক্ষে সংঘর্ষ, আহত ১১

বগুড়ার শেরপুরে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থী বাছাই করা নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে ১১ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে দুজনকে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার শাহবন্দেগী ইউনিয়নের শেরুয়া বটতলা বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী জানায়, আজ বিকেলে ইউপি নির্বাচনে উপজেলার শাহবন্দেগী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান পদের প্রার্থী বাছাই করা নিয়ে শেরুয়া বটতলা এলাকায় একটি বিদ্যালয়ে দলীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। কাউন্সিলে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ৮৩ জন ভোটার গোপন ভোটে দলীয় প্রার্থী নির্ধারণ করেন। ভোটে ৪৬ ভোট পেয়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য আলামিন মণ্ডল দলীয় প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হন। প্রতিদ্বন্দ্বী অপর প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য আবু তালেব আকন্দ পান ৩৭ ভোট। ভোট শেষে আয়োজিত কাউন্সিলের অতিথিরা আলামিন মণ্ডলকে বিজয়ী ঘোষণা করেন। এ সময় প্রতিদ্বন্দ্বী দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে শটগানের গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এলাকাবাসী আরো জানায়, সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে আবু তালেব আকন্দের সমর্থক আসাদুল ইসলাম (৪০) ও আলামিন মণ্ডলের সমর্থক মুকুল হোসেনকে (৪২) শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আল আমিন মণ্ডল দাবি করেন, তিনি বিজয়ী হওয়ার পর তাঁর সমর্থকেরা আনন্দ উল্লাস করছিলেন। তখন আবু তালেবের লোকজন তাঁদের ওপর হামলা করেন।

তবে আবু তালেব দাবি করেন, আলামিনের লোকজন বিজয় মিছিল করে তাঁর সমর্থকদের ওপর হামলা করেছে।

এ বিষয়ে শাহবন্দেগী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, এ সংঘর্ষ স্থানীয়ভাবে দলের জন্য ক্ষতি হয়েছে।

এ ব্যাপারে শেরপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। তবে কারও পক্ষ থেকে অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পাওয়া গেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য