কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজ সংগঠনের-334830 | সারাবাংলা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১৪ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৬ জিলহজ ১৪৩৭


কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজ সংগঠনের কর্মীকে পিটিয়েছে ছাত্রলীগ

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি    

১১ মার্চ, ২০১৬ ২১:০২



কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজ সংগঠনের কর্মীকে পিটিয়েছে ছাত্রলীগ

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন কর্মী নিজেদের সংগঠনের এক কর্মীকে মারধর করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ শুক্রবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজী নজরুল ইসলাম হলের সামনে এ ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়। ছাত্রলীগের আহত ওই কর্মীকে কুমিল্লা  মেডিক্যাল কলেজে পাঠানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকেল ৫টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের ছাত্রলীগ কর্মী ও অর্থনীতি বিভাগের অষ্টম ব্যাচের শিক্ষার্থী মাসুদ আলম কাজী নজরুল ইসলাম হলের সামনে চায়ের দোকানে যান। এ সময় মাসুদের সঙ্গে কাজী নজরুল ইসলাম হলের ছাত্রলীগ কর্মী গোলাম দস্তগীর ফরহাদ (গণিত সপ্তম ব্যাচ), স্বজন বিশ্বাস (নৃবিজ্ঞান সপ্তম ব্যাচ), তামীম (নৃবিজ্ঞান সপ্তম ব্যাচ), সাইফুল ইসলাম (মার্কেটিং সপ্তম ব্যাচ) এবং মেজবাহ উদ্দিনের (গণিত সপ্তম ব্যাচ) সঙ্গে  বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতি হয়। এ সময় মাসুদকে তারা লাঠি দিয়ে পায়ে, হাতে ও পিঠে আঘাত করে। বেদড়ক মারধরে মাসুদের হাতের কনুই ও পা রক্তাক্ত হয়। পরে প্রত্যক্ষদর্শীরা মাসুদকে উদ্ধার করে বঙ্গবন্ধু হলে নিয়ে আসে। এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে নজরুল হলের সামনে থেকে মাসুদকে ধাওয়া করে তারা।

জানা যায়, বেশ কিছু দিন আগে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কাজী নজরুল ইসলাম হলে ফরহাদ মাসুদকে চড়থাপ্পড় দেয়। পরে মাসুদ বন্ধুদের নিয়ে ফরহাদকে মারধর করে। ওই পুঞ্জিভূত ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশে আজ শুক্রবার ফরহাদ তার বন্ধুদের নিয়ে মাসুদকে মারধর করেন বলে ধারণা করা হয়।

এ বিষয়ে ফরহাদ ও স্বজনের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তারা মাসুদকে মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করেন। মাসুদ ওই সময় প্রথমে ফরহাদকে মারধর করেন বলে জানান তারা।

আহত মাসুদ আলম বলেন, "নজরুল হলের সামনে চায়ের দোকানে গেলে ফরহাদ, স্বজন, সাইফুল, মেজবাহসহ তাদের বন্ধুরা আমাকে মারধর করে। এর আগের দিন রাতে আমাকে ধাওয়া করে তারা।" ছাত্রলীগ নেতা ইলিয়াস হোসেন সবুজ ও সাধারণ সম্পাদক রেজা-ই-এলাহী বলেন, "মারধরের বিষয়টি আমরা জেনিছি। বিষয়টি খতিয়ে দেখে দোষীদের বিরুদ্ধে দ্রুত সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।" এ বিষয়য়ে প্রক্টর মো.  আইনুল হক বলেন, "আমি ঘটনাটি জেনেছি এবং হল প্রশাসনকে জানিয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।"

 

মন্তব্য