kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নলছিটিতে বিদ্রোহী প্রার্থীর উঠান বৈঠকে হামলা, আহত ২০

ঝালকাঠি প্রতিনিধি   

৯ মার্চ, ২০১৬ ২৩:১০



নলছিটিতে বিদ্রোহী প্রার্থীর উঠান বৈঠকে হামলা, আহত ২০

ঝালকাঠির নলছিটির দপদপিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থীর উঠান বৈঠকে হামলা করেছে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা। হামলায় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।

তাদের মধ্যে তিনজনকে গুরুতর অবস্থায় বরিশাল শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আজ বুধবার বিকেলে বুড়িরহাট এলাকার রশিদ মাষ্টারের বাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আজ বিকেল ৫টার দিকে বুড়িরহাট এলাকার রশিদ মাষ্টারের বাড়ির সামনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী (সতন্ত্র) প্রার্থী মিজানুর রহমান হাওলাদারের উঠান বৈঠক চলছিল। এ সময় আওয়ামী লীগ মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থী সোহরাব হোসেন বাবুল মৃধার ভাই নাসির মৃধা লোকজন নিয়ে হামলা চালায়। ওই সময় তারা লাঠিসোটা দিয়ে এলোপাথারি পিটুনি শুরু করে। এতে বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মী-সমর্থক মানিক হাওলাদার, আবুল কালাম, উজ্জল, শামসুল হক, নান্নু হাওলাদার ও জলিল উদ্দিনসহ ২০ জন আহত হয়। এদের মধ্যে তিনজনকে গুরুতর অবস্থায় বরিশাল শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। উঠান বৈঠকে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মিজানুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। হামলার সময় স্থানীয়রা তাকে দ্রুত একটি ঘরের মধ্যে নিয়ে যায়।

মিজানুর রহমান অভিযোগ করেন, নির্বাচনে নিশ্চিত পরাজয় ভেবে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী সোহরাব হোসেন বাবুল মৃধা বিভিন্ন স্থানে তার প্রচার কাজে বাধা দিচ্ছেন। প্রচারণার প্রথম দিনেই তার প্রচার মাইক ভাঙচুর করে। বুধবার বিকেলে তার উঠান বৈঠকে অস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে হামলা করেছে। বিষয়টি পুলিশ ও নির্বাচন কর্মকর্তাকে জানানো হয়েছে।

তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী সোহরাব হোসেন বাবুল মৃধা বলেন, কারা হামলা করেছে, তা আমার জানা নেই। দল আমাকে মনোনয়ন দিয়েছে, আমি দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রচার কাজে ব্যস্ত আছি।

এ ব্যাপারে নলছিটি থানার ওসি এস এম মাকসুদুর রহমান বলেন, সতন্ত্র প্রার্থীর উঠান বৈঠকে হামলার খবর পেয়ে সেখানে পুলিশ পাঠিয়েছি। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। এ ব্যাপারে এখনো কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 


মন্তব্য