kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


জাবিতে ছাত্রদলের দুই কর্মীকে বেধড়ক পেটাল ছাত্রলীগ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

৯ মার্চ, ২০১৬ ২১:১৬



জাবিতে ছাত্রদলের দুই কর্মীকে বেধড়ক পেটাল ছাত্রলীগ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের দুই কর্মীকে বেধড়ক পিটিয়েছে জাবি শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিক্যাল সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

গতকাল মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মওলানা ভাসানী হলে এ ঘটনা ঘটে।

মারধরের শিকার ছাত্রদল কর্মীরা হলেন- মওলানা ভাসানী হলের ৪১তম ব্যাচের ছাত্র আসাদুজ্জামান আসাদ (ইংরেজি বিভাগ), নুরুল হক (পর্দাথ বিজ্ঞান বিভাগ)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ছাত্রদল করার অপরাধে গতকাল মঙ্গলবার রাতে মওলানা ভাসানী হলের ৪১তম ব্যাচের ছাত্র আসাদুজ্জামান আসাদ (ইংরেজি বিভাগ) ও নুরুল হককে (পর্দাথ বিজ্ঞান বিভাগ) হলের অতিথি কক্ষে ডেকে নিয়ে মারধর করতে থাকে ছাত্রলীগ নেতা  ফিরোজুর রহমান সবুজ, মেহেদি হাসান রোমান(সহ-সম্পাদক), সারোয়ার হোসাইন, হাসনাথ এবং ৪১তম আবর্তনের আরিফুল ইসলাম, জুবায়ের আহমেদ, রোকনসহ ১৫-২০ জন। মারধরকারী ছাত্রলীগকর্মীরা সবাই শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোর্শেদুর রহমান আকন্দের অনুসারী। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিক্যাল সেন্টারে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে মওলানা ভাসানী হল শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জানান, বিভিন্ন সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তারা ছাত্রলীগ সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করে আসছিল। সর্বশেষ মঙ্গলবার ভোরে ছাত্রদল গোপন মিটিং করে রুমে ঢুকছে এমন খবর পেয়ে তাদেরকে মারধর করা হয়েছে। তবে মিটিংয়ের অভিযোগ অস্বীকার করেছে আহতরা।

এদিকে এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম সৈকত বলেন, ছাত্রলীগই ক্যাম্পাসে অপতৎপরতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ছাত্রলদকর্মীদের মারধর করছে। এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। একই সঙ্গে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ ক্যাডারদের বিচার দাবি করছি।

অপরদিকে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং মওলানা ভাসানী হলের শিক্ষার্থী মোর্শেদুর রহমান আকন্দ জানান, ছাত্রদলের নতুন কমিটি দেওয়ায় বিভিন্নভাবে ছাত্রদলের জুনিয়র কর্মীরা ক্যাম্পাসে অস্থিতিশীল করার পায়তারা করছে। এ জন্য জুনিয়ররা তাদেরকে মারধর করেছে। কেউ ভবিষ্যতে এমন অপতৎপরতা সৃষ্টি করতে চাইলে জাবি ছাত্রলীগ তাদেরকে শক্ত হাতে দমন করবে।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর তপন কুমার সাহা বলেন, এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 


মন্তব্য