রংপুরে ছোট ভাইসহ পাঁচজনের-334056 | সারাবাংলা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১২ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৪ জিলহজ ১৪৩৭


প্রতিবন্ধী বড় বোনকে হত্যা

রংপুরে ছোট ভাইসহ পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড

রংপুর অফিস   

৯ মার্চ, ২০১৬ ১৯:৪৪



রংপুরে ছোট ভাইসহ পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড

রংপুরে বড় বোন আনজিরাকে হত্যার দায়ে ছোট ভাই আব্দুল মজিদসহ পাঁচজনকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। আজ বুধবার রংপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ-২ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান  এ রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্তরা হলেন- আনজিরার ছোট ভাই আব্দুল মজিদ, এলাকাবাসী মমিনুল ইসলাম, আরিফুল ইসলাম, এমদাদুল হক ও আনোয়ারুল হক। রায় ঘোষণার সময় আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন তারা। রায় শোনার পর অনেকেই কান্নায় ভেঙে পড়েন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার চতরা ইউনিয়নের কুমারপুর গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের প্রতিবন্ধী মেয়ে আনজিরা খাতুন ভিক্ষা করে জীবনযাপন করতেন। তিনি বাবার বাড়িতেই ছোট ভাই মজিদের সঙ্গে থাকতেন। পারিবারিক বিরোধের জের ধরে ঘটনার দিন গত ২০০৬ সালের ৯ মার্চ রাতে আনজিরাকে পরিকল্পিতভাবে জবাই করে হত্যা করা হয়। হত্যা পর তার মরদেহ বাড়ির পার্শ্ববর্তী সিরাজ হাজী নামে এক ব্যক্তির বাঁশঝাড়ের ভেতর ফেলে রাখা হয়। এর পরদিন সকালের দিকে আনজিরার মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ বাঁশঝাড় থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। এ ঘটনায় আনজিরার বড় ভাই আব্দুল বাকী বাদী হয়ে ছোট ভাই আব্দুল মজিদসহ ষড়যন্ত্রকারী একই এলাকার মমিনুল ইসলাম, আরিফুল ইসলাম, ইমদাদুল হক ও আনোয়ারুল ইসলামকে আসামি করে পীরগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলাটি দীর্ঘদিন আদালতে বিচারাধীন থাকার পর উল্লেখিত আসামিদের বিরুদ্ধে এই হত্যাকাণ্ডে সরাসরি জড়িত থাকার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে বিচারিক হাকিম তাদেরকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ প্রদান করেন।

আসামী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন চৌধুরী ও বসুনিয়া মো. আরিফুল হক স্বপন এবং বাদী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) ফারুক মো. রেয়াজুল করিম।

রায় ঘোষণার পর এক প্রতিক্রিয়ায় আসামী পক্ষের আইনজীবি বসুনিয়া মো. আরিফুল ইসলাম জানান, তারা এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন।

মন্তব্য