সাভারে আগুনে পুড়ল শ্যামলী পরিবহনের-334023 | সারাবাংলা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০১৬। ১৬ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৮ জিলহজ ১৪৩৭


সাভারে আগুনে পুড়ল শ্যামলী পরিবহনের দুটি বাস

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার   

৯ মার্চ, ২০১৬ ১৭:২৬



সাভারে আগুনে পুড়ল শ্যামলী পরিবহনের দুটি বাস

সাভারের বলিয়ারপুরে শ্যামলী পরিবহনের দুটি বাস আগুন পুড়ে গেছে। আজ বুধবার ভোর রাতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের বলিয়ারপুর এন আর সিএনজি ফিলিং স্টেশনে এ ঘটনা ঘটে।

এ বিষয়ে সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এসএম কামরুজ্জামান জানান, শ্যামলী পরিবহনের একটি বাসের দুই শ্রমিক মঙ্গলবার রাতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের বলিয়ারপুর এন আর সিএনজি ফিলিং স্টেশনের কাছে গাড়ির ভিতরে মশার কয়েল জ্বালিয়ে ঘুমান। ভোর রাতের দিকে ওই মশার কয়েল থেকে বাসটিতে আগুন লেগে যায়। আগুনের তাপ পেয়ে ঘুমে থাকা বাসের চালক ও তার সহকারী দ্রুত বাস থেকে নেমে গিয়ে বাসটির আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করেন। এ সময় ফিলিং স্টেশনের কর্মীরা সাভার ফায়ার সার্ভিস স্টেশনে খবর দেয়। কিন্তু ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই আগুনে শ্যামলী গ্রুপের এন আর সিনজি ফিলিং স্টেশনের পার্কিংয়ে থাকা শ্যামলী পরিবহনের অপর একটি বাসেও আগুন ছড়িয়ে পড়ে। পরে সাভার ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ততক্ষণে বাস দুটির একটি সম্পূর্ণ পুড়ে যায় এবং অপর বাসটি আংশিক পুড়ে যায়। খবর পেয়ে সাভার মডেল থানা পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

ওসি আরো জানান, ওই পরিবহনের কর্মীদের অভ্যন্তরীণ কোন কোন্দলের জের ধরেই এ ঘটনা ঘটেছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
তবে বুধবারে ডাকা হরতাল সমর্থকরা এই বাস দুটিতে অগ্নিসংযোগ করেনি বলে শতভাগ নিশ্চিত করেন তিনি।

সাভার ফায়ার সার্ভিস অফিসের স্টেশন অফিসার শেখ শাহাজির রহমানও মশার কয়েল থেকে বাস দুটিতে আগুন লেগেছে উল্লেখ করে বলেন, প্রায় ১ ঘণ্টা চেষ্টার পর তারা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। বাস দুটিতে হতাহতের কোন ঘটনা ঘটেনি।

এ ব্যাপারে শ্যামলী পরিবহনের ম্যানেজার পার্থ প্রতীম জানান, রাতে তাদের ঢাকা মেট্রো-ব- ১৪-১৪৭৫ নম্বরের বাসটি এনআর সিএনজি ফিলিং স্টেশনের ভিতরে ছিল। বাসে থাকা শ্রমিকদের অসতর্কতার কারণে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে মানবতাবিরোধী অভিযুক্ত জামায়াত নেতা মীর কাশেম আলীর মৃত্যুদণ্ডের রায় বহালের প্রতিবাদে হরতালের দিনে বাসে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

 

মন্তব্য