kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সাভারে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার   

৮ মার্চ, ২০১৬ ১৭:২২



সাভারে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত

আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে ‘অধিকার, মর্যাদায় নারী-পুরুষ সমানে সমান’ শ্লোগান নিয়ে সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), উপজেলা প্রশাসন ও এনজিও সমন্বয় পরিষদ সাভার যৌথভাবে আজ মঙ্গলবার দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করে। কর্মসূচিগুলোতে নারী-পুরুষের বৈষম্য রোধ, নারী অধিকার প্রতিষ্ঠা, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক ক্ষমতায়নের পাশাপাশি সকল ক্ষেত্রে নারীর অভিগম্যতা, ন্যায্যতা, সম্পদের মালিকানা, সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণসহ বিভিন্ন দাবি জানানো হয় ।

দিনের শুরুতেই নারীর প্রতি সব ধরনের বৈষম্য, অবজ্ঞা, নির্যাতন ও দুর্নীতি নির্মূলের লক্ষ্যে আয়োজিত একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি সাভার উপজেলা চত্বর থেকে শুরু হয়ে ঢাকা-আরিচা মহসড়ক প্রদক্ষিণ করে পৌর এলাকার আনন্দপুরে উন্নয়ন সংস্থা ভার্ক মিলনায়তনে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালির নেতৃত্বে ছিলেন ঢাকা- ১৯ আসনের (সাভার) সংসদ সদস্য ডা. মো. এনামুর রহমান। র‌্যালিতে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক নারী, সাধারণ জনগণ ও প্রান্তিক জণগোষ্ঠীর মানুষ স্বত:স্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করে। র‌্যালি, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দিনের কর্মসূচি শেষ হয়।

ভার্ক মিলনায়তনে আন্তর্জাতিক নারী দিবসের ওপর টিআইবির অবস্থানপত্র বিতরণ করা হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য ডা. মো. এনামুর রহমান। সাভার উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো: যুবায়ের এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সাভার উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা খালেদা আক্তার জাহান। এতে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা প্যানেল চেয়ারম্যান দেওয়ান মো. পারভেজ, এনজিও সমন্বয় পরিষদের সভাপতি ও ভার্ক এর নির্বাহী পরিচালক শেখ আব্দুল হালিম, এ্যাডাব ঢাকা জেলার সভাপতি মো. ইয়াকুব হোসেন, জাতীয় মহিলা পরিষদ সাভার শাখার সভা প্রধান পারভীন ইসলাম, সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিসেস রোকেয়া হক ও টিআইবির প্রোগ্রাম ম্যানেজার সমাপিকা হালদারসহ বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তাবৃন্দ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাংসদ এনামুর রহমান বলেন, প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায় থেকে শুরু করে দেশের প্রধানমন্ত্রী, বিরোধীদলীয় নেত্রী, জাতীয় সংসদের স্পীকারসহ বিভিন্ন নীতি নির্ধারনী পর্যায়ে নারী আজ নিজস্ব যোগ্যতায় সর্বক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত। সম্প্রতি জাতিসংঘ শান্তি মিশনে নারী প্রধান সৈন্য দল পাঠানো হয়েছে। মেরিন ইজ্ঞিনিয়ার হয়ে নারীরা আজ সমুদ্রে জাহাজ চালাচ্ছে। বর্তমান সরকার নারীর ক্ষমতায়নে এবং সকল ক্ষেত্রে অংশীদারিত্ব নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছে। সাভার তথা সারা বাংলাদেশের নারীর আরো ক্ষমতায়নে ইতিবাচক ভূমিকা রাখার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

আলোচনা সভায় বক্তাগণ বলেন, নারীরা ক্ষমতায়িত হচ্ছে, তবে বিভিন্ন ক্ষেত্রে নির্যাতনের শিকারও হচ্ছে। বর্তমান সরকার নারী বান্ধব সরকার। নারীর ক্ষমতায়নে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। নারীরা দেশের উন্নয়নে যথেষ্ট অবদান রাখছে। তাদের অবদান পুরুষের চেয়ে কোন অংশে কম নয়। তারা স্ব-স্ব অবস্থান থেকে সমঅধিকার ও সমমর্যাদা নিশ্চিত করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। একই সঙ্গে সকলকে নারীর উন্নয়নে সম্মলিত ভাবে কাজ করার আহ্বান জানান।


মন্তব্য