kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


পাথরঘাটায় ইউপি নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ মার্চ, ২০১৬ ১৫:০২



পাথরঘাটায় ইউপি নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নির্বাচনী সহিংসতা, হামলা-ভাঙচুর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আজ রবিবার সকালে পাথরঘাটা প্রেসক্লাবে চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ দুজন ইউপি সদস্য প্রার্থী পৃথক সংবাদ সম্মেলনে মাধ্যমে এ অভিযোগ করেন।

এ ঘটনায় দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ৬ নম্বর কাকচিড়া ইউনিয়নের বিএনপি (ধানের শীষ) মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. আবুল হোসেনের কর্মী-সমর্থকদের নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা দেয় তার প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী আলাউদ্দিন পল্টু ও তার সমর্থকরা। ইতিমধ্যে ৫ মার্চ শনিবার আবুল হোসেনের সমর্থক মো. মিন্টু মিয়া ও আ. কুদ্দুসকে কুপিয়ে আহত করে। এর মধ্যে মো. মিন্টু মিয়ার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজে স্থানান্তর করা হয়। এ ঘটনায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী আলাউদ্দিন পল্টুর সমর্থক রমীম দালাল ও মঞ্জুরল আলমকে পুলিশ আটক করে।

সংবাদ সম্মেলনে চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল হোসেন নির্বাচনে সেনাবাহিনী ও র‌্যাব মোতায়েনের দাবি করে বলেন, আমার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী প্রকাশ্যে ভোট কেটে বিজয়ী হবেন বলেও ঘোষণা দিচ্ছেন।

এদিকে একই দিনে ৩ নম্বর চরদুয়ানী ইউনিয়নের ৭নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ আসনের সদস্য প্রার্থী মো. ছগির মিয়া ও তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মো. কবির মোল্লা হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে মো. ছগির মিয়ার বিরুদ্ধে কবির মোল্লা বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগ করেন। অপরদিকে পাল্টা সম্মেলনে মো. প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী কবির মোল্লা এ অভিযোগ সত্য নয় বলে দাবি করেন।

আটককৃতদের বিষয় জানতে চাইলে পাথরঘাটা থানা ওসি এস এম জিয়াউল হক সাংবাদিকদের বলেন, আটককৃতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। যেকোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা দমন করা হবে।

 


মন্তব্য