জামালপুরে কলেজছাত্রীকে অপহরণের-332163 | সারাবাংলা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

সোমবার । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১১ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৩ জিলহজ ১৪৩৭


জামালপুরে কলেজছাত্রীকে অপহরণের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেপ্তার

জামালপুর প্রতিনিধি    

৪ মার্চ, ২০১৬ ১৯:৩৫



জামালপুরে কলেজছাত্রীকে অপহরণের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেপ্তার

জামালপুরের বিয়ের প্রলোভনে এক কলেজছাত্রীকে অপহরণের অভিযোগে রিফাত চৌধুরী নামে এক কলেজ শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার সকালে গ্রেপ্তার করা হয় তাকে। গ্রেপ্তারকৃত রিফাত জেলার ইসলামপুর উপজেলার গঙ্গাপাড়া গ্রামের তারেক চৌধুরীর ছেলে ও দেওয়ানগঞ্জ একে মেমোরিয়াল কলেজের প্রভাষক।   

ইসলামপুর থানা পুলিশ ও অপহৃতার পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, কলেজ শিক্ষক রিফাত বিবাহিত ও এক সন্তানের জনক। দুই বছর আগে রিফাত চৌধুরী প্রাইভেট পড়াতে গিয়ে একই গ্রামের হাজি জাহাঙ্গীর আলমের কলেজপড়ুয়া মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। একই গ্রামের বাসিন্দা রিফাত ও ওই ছাত্রী মামাতো ফুফাতো ভাই-বোন। সম্প্রতি তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গভীর হয়। গত বুধবার বিকেলে ওই ছাত্রী ইসলামপুর জেজেকেএম গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে নিজ বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় রিফাত চৌধুরী একই গ্রামের হৃদয় চৌধুরীর সহায়তায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই ছাত্রীকে রাস্তা থেকে জোরপূর্বক সিএনজিচালিত অটোরিকশায় তুলে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। ওইদিন সন্ধ্যা পর্যন্ত খুঁজে না পেয়ে মেয়েটির বাবা হাজি জাহাঙ্গীর আলম কলেজ শিক্ষক রিফাত চৌধুরীসহ চারজনের বিরুদ্ধে ইসলামপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

এ ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে রিফাত চৌধুরীর পরিবারের সদস্য ও মেয়েটির বাবাকে নিয়ে একটি সালিসি বৈঠক বসানো হয়। সেখানে মোটা অঙ্কের দেনমোহর ও পাঁচ বিঘা জমি লিখে দিয়ে মেয়েটিকে রিফাত চৌধুরীর সঙ্গে বিয়ের প্রস্তাব করেন মেয়েটির বাবা। কিন্তু রিফাত চৌধুরীর পরিবারের সদস্যরা তা প্রত্যাখান করেন। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে পুলিশ রিফাত চৌধুরীর বাড়ি থেকে অপহৃতাকে উদ্ধার করেন। এ সময় কলেজ শিক্ষক রিফাতকে তার বাড়ি থেকে আটক করে পুলিশ।

ইসলামপুর থানার ওসি দ্বীন-এ আলম জানান, শুক্রবার সকালে মেয়েটির বাবা চারজনকে আসামি করে ইসলামপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে গ্রেপ্তারকৃত আসামি রিফাত চৌধুরীকে জামালপুর আদালতে সোপর্দ করলে আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠান।

 

মন্তব্য