kalerkantho


নির্বাচনী সহিংসতা

ভোলায় সংখ্যালঘু বাড়িতে হামলা-লুটপাট, আহত ৩

ভোলা প্রতিনিধি    

৪ মার্চ, ২০১৬ ১৮:১০



ভোলায় সংখ্যালঘু বাড়িতে হামলা-লুটপাট, আহত ৩

ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোলায় এক সংখ্যালঘু বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট চালিয়েছে চেয়ারম্যান প্রার্থীর ক্যাডাররা। হামলায় সংখ্যালঘু পরিবারের তিন সদস্য আহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে গ্রেপ্তার করেছে। জলদস্যু প্রার্থীর পোস্টার লাগাতে বাধা দেওয়ার জের ধরে আজ শুক্রবার দুপুরে সদর উপজেলার বাপ্তা ইউনিয়নের বাপ্তা গ্রামের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কালিগাছ  বাড়িতে এ হামলা, ভাঙচুর ও লুটপটের ঘটনা ঘটে।

হামলার শিকার বাপ্তা ইউনিয়নের বাপ্তা গ্রামের কালিগাছ বাড়ির ওই ওয়ার্ডের বাসিন্দা রিপন চন্দ্র দে (তনু) জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে বাপ্তা গ্রামে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী (আনারস প্রতীক) জলদস‍্যু সকেট কামালের কর্মীরা পোস্টার লাগাতে গেলে তিনি বাধা দিয়ে বলেন, "এ গ্রামে জলদস্যুদের কোনো পোস্টার লাগানো যাবে না। এর জের ধরে আজ শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সকেট কামালের কর্মী টিটু বরদ্দারের নেতৃত্বে ২০-২৫ জন সশস্ত্র ক্যাডার তার ঘরে হামলা চালায়। হামলাকারীরা ঘরের আলমারি ভাঙচুর করে ঘরে থাকা জমি বিক্রির নগদ ১৪ লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। হামলায় রিপন চন্দ্র দে (তনু), তার মা রমা রানী দে ও ভাই দিপক চন্দ্র দে আহত হন। গুরুতর আহত রিপন চন্দ্র দে-কে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়িভাবে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে বলে জানান রিপন।

এদিকে, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সকেট কামাল জানান, ওই হামলার সঙ্গে তার কোনো কর্মী-সমর্থক জড়িত নয়।

হামলার শিকার রিপন চন্দ্র দে এক মেম্বর প্রার্থীর কর্মী। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী মেম্বার প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে এ ঘটনা ঘটেছে বলেও দাবি করেন তিনি। ভোলা সদর মডেল থানার ওসি মীর খায়রুল কবির জানান, এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ টিটু বরদ্দার (কামাল) নামে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

 


মন্তব্য