kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নরসিংদীতে 'বন্দুকযুদ্ধে' জোড়া খুনের দুই আসামি নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, নরসিংদী    

৩ মার্চ, ২০১৬ ১৪:২৭



নরসিংদীতে 'বন্দুকযুদ্ধে' জোড়া খুনের দুই আসামি নিহত

নরসিংদীতে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে জোড়া খুন মামলার দুই আসামি নিহত হয়েছেন। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছেন আরো একজন।

গতরাত ৩টার দিকে শহরের ইউএমসি জুট মিলের পার্শ্ববর্তী বালুমাঠে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন শহরের নাগরিয়াকান্দী এলাকা জহিরুল ইসলাম ও রাকিব মিয়া। আহত হোসেন আলীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় চাঁদা না দেওয়ায় শহরের ভাগদীতে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা ব্যবসায়ী খোকন খন্দকার ও তাঁর বন্ধু আরিফ খন্দকারকে গুলি করে হত্যা করে। ওই ঘটনায় রাতেই নিহত খোকন খন্দকারের বড় ভাই সেলিম খন্দকার বাদী হয়ে নাগরিয়াকান্দী এলাকার সন্ত্রাসী ইসলামকে প্রধান আসামি করে ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে আরো অজ্ঞাত ৪-৫ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ রাত ৩টার দিকে শহরের ইউএমসি জুট মিলের পার্শ্ববর্তী বালুমাঠে অভিযান চালায়। এ সময় পুলিশ বালুমাঠে অবস্থান করা একদল সন্ত্রাসীকে ঘিরে ফেললে সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়।

পুলিশ আরো জানায়, সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। শুরু হয় উভয় পক্ষের মধ্যে গুলিবিনিময়। একপর্যায়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় জোড়া খুন মামলার এজাহারনামীয় আসামি জহিরুল, রাকিব ও হোসেনকে গ্রেপ্তার করে। তাদেরকে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক জহিরুলকে মৃত ঘোষণা করেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় বাকি দুজনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাকিবের মৃত্যু হয়।

নরসিংদী সদর মডেল থানার ওসি গোলাম মোস্তফা বলেন, "নিহতরা সবাই জোড়া খুন মামলার এজাহারনামীয় আসামি। তাদের বিরুদ্ধে হত্যাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, দুই রাউন্ড গুলি ও দুটি চাপাতি উদ্ধার করা হয়েছে। "

 


মন্তব্য