kalerkantho

বিশ্ব নারী দিবস

নারীদের কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের নতুন সিলিন্ডার উম্মোচন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ মার্চ, ২০১৯ ১৬:২৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নারীদের কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের নতুন সিলিন্ডার উম্মোচন

সামনে ৮ মার্চ, বিশ্ব নারী দিবস। পৃথিবীর সকল নারীর জন্য অত্যন্ত গৌরব ও সম্মানের দিন। নারীর সাফল্যের স্বীকৃতির দিন। দেশের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক উন্নয়নে নারীর অবদানকে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্যই বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেড তাদের নিজস্ব সিলিন্ডারে রেখাচিত্রের মাধ্যমে তুলে ধরে আবহমানকাল ধরে নারীদের উল্লেখযোগ্য কর্মকাণ্ড।

আবহমানকাল ধরে পুরুষের পাশাপাশি নিরন্তর কাজ করে চলেছে নারী। অথচ নারীর কাজের স্বীকৃতির প্রশ্ন উঠলেই আমরা বলে উঠি 'এ আর এমন কি!' বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের সিলিন্ডারে তুলে ধরা হয়েছে নারীর সেসব কাজের রেখাচিত্র। নারীদের বিশাল কর্মমুখিতাকে সম্মান জানাতেই বসুন্ধরার এই ক্ষুদ্র প্রয়াস।

প্রায় ১ লাখ নতুন সিলিন্ডারের গায়ে নারীদের কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ এই রেখাচিত্রের আয়োজন করা হয়। আন্তর্জাতিক নারী দিবসে নতুন এই সিলিন্ডারগুলোকে বাজারে ছাড়া হবে সীমিত সময়ের জন্য। 

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন নিউজ টোয়েন্টিফোর এর হেড অব কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোহী অধ্যাপক সামিয়া রহমান। অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের হেড অব মার্কেটিং জনাব এম এম জসিম উদ্দিন।

তিনি বলেন, আমরা কখনও তলিয়ে দেখি না যে সামাজিক সূচকে বাংলাদেশের বিস্ময়কর সাফল্যের পেছনে নারীর বিরাট ভূমিকা রয়েছে। সামাজিক-সাংস্কৃতিক-মনস্তাত্ত্বিক বৈষম্য ও নিরাপত্তাহীনতা সত্ত্বেও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে নারীর অংশগ্রহণ বাড়ছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও পুষ্টির সূচকে নারীর অবস্থার উন্নতি হচ্ছে। কিন্তু অধিকারের সমতা আজও রয়ে গেছে অধরা। তাদের কাজগুলোকে আমরা উড়িয়েই দেই, আমরা এমন মনোভাব প্রকাশ করি যে 'এ আর এমন কি!' আমরা বিশ্বাস করি নারী-পুরুষের মিলিত প্রয়াসে আসবে সর্বজনীন প্রগতি। আর তাই আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রয়াস।

সামিয়া রহমান বলেন, নারী-পুরুষ নয় আমি মানবতাবাদে বিশ্বাসী। নারীর অধিকার মানে শুধু অর্থনৈতিক মুক্তি নয় নারীর অধিকার মানে তার ব্যক্তিগত স্বাধীনতা এবং নিরাপত্তা। সেটা যখন শুধু এ সমাজ নয় পুরো বিশ্বে প্রতিষ্ঠিত হবে তখন নারী-পুরুষ বলে কোনো ব্যাপার না, সব মানুষের অধিকার নিশ্চিত হবে। বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের এই উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসার দাবিদার। সামাজিক উন্নয়নে আবহমানকাল ধরে নারীদের বিভিন্ন কাজগুলোকে শৈল্পিকভাবে পণ্যের গায়ে ফুটিয়ে তোলার এই উদ্যোগ সত্যিই অতুলনীয়।  

বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল হেডকোয়ার্টার্স ২ এ অনুষ্ঠিত হয় এই অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন জনাব জেড এম আহমেদ প্রিন্স (হেড অব বিজনেস ডেভেলপমেন্ট, সেক্টর এ, বসুন্ধরা গ্রূপ), জনাব মাহবুব আলম, হেড অব অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড ফাইন্যান্স, বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লি.), জনাব জাকারিয়া জালাল (জিএম, সেলস, বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লি.)

মন্তব্য