kalerkantho


বর্ণাঢ্য আয়োজনে আইইউবিএটির ২৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ জানুয়ারি, ২০১৯ ১১:৩৬



বর্ণাঢ্য আয়োজনে আইইউবিএটির ২৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যে দিয়ে ১৬ জানুয়ারি বুধবার, ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এগ্রিকালচার অ্যান্ড টেকনোলজির (আইইউবিএটি) ২৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। সবার জন্য উচ্চশিক্ষা মূলমন্ত্রের মধ্যে দিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রফেসর ও আইবিএ এর সাবেক পরিচালক এবং শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. এম আলিমউল্যা মিয়ান ১৯৯১ সালে স্বনামধন্য এই প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই জ্ঞানভিত্তিক এলাকা উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে আইইউবিএটি। আইইউবিএটির দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা হচ্ছে প্রতিটি গ্রাম থেকে অন্তত একজন করে পেশাদার গ্র্যাজুয়েট তৈরি করা।

বিগত বছরগুলোর ন্যায় এবারও আইইউবিএটির বিভিন্ন উৎসবের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হচ্ছে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আইইউবিএটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুর রবের সভাপতিত্বে এক আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আলোচনা অনুষ্ঠানে অধ্যাপক ড. এম আলিমউল্যা মিয়ান স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. হামিদা আখতার বেগম, কোষাধ্যক্ষ ও পরিচালক প্রশাসন অধ্যাপক সেলিনা নার্গিস, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক মো. লুত্ফর রহমান, অধ্যাপক ড. খাজা মুহাম্মদ সুলতানুল আজিজ, প্রকৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. মনিরুল ইসলাম, কৃষি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. শহীদুল্লাহ মিয়া, ব্যবসায় অনুষদের ডিন অধ্যাপক সিরজউদ্দৌলা শাহীন, কলেজ অব আর্টস অ্যান্ড সাইন্স অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবুল খায়েরসহ অন্যান্য অধ্যাপকগণ। এ সময় সবার অংশগ্রহণে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটা হয়।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বর্ণিল সাজে সেজেছিল আইইউবিএটি। পুরো ক্যাম্পাসজুড়ে জমকালো আলোকসজ্জা করা হয়। এ ছাড়াও ১৬ জানুয়ারি ২০১৯ থেকে ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ মাসব্যাপী উদ্‌যাপন করা হবে। 

মাসব্যাপী অনুষ্ঠানে আরো রয়েছে আইইউবিএটির প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক ড. এম আলিমউল্যা মিয়ান এবং প্রথম উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মাহমুদা খানম এর রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়ার আয়োজন, সেমিনার, ওয়ার্কশপ, ল্যাব প্রদর্শনী, ৮০তম নবীনবরণের অনুষ্ঠান, ট্যালেণ্ট হান্ট, খেলাধুলার প্রতিযোগিতা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ নানা ধরনের প্রতিযোগিতার আয়োজন। 

আইইউবিএটির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অ্যালামনাই, অভিবাবকদের অংশগ্রহণে মেলায় পরিণত হয়।



মন্তব্য