kalerkantho


বাজাজ ভি-উত্তরা মটরসের 'ইনভিনসিবল বাংলাদেশি' ক্যাম্পেইন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১১:৫৩



বাজাজ ভি-উত্তরা মটরসের 'ইনভিনসিবল বাংলাদেশি' ক্যাম্পেইন

বাজাজ ভি এবং উত্তরা মটরসের উদ্যোগে ইনভিনসিবল বাংলাদেশি ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে। এই ক্যাম্পেইনে সমাজের জন্য, মানুষের জন্য নিঃস্বার্থভাবে অবিরত কাজ করে চলা মানুষগুলোর গল্প তুলে ধরা হচ্ছে সবার সামনে।

গতকাল রবিবার উত্তরা মটরসের তেজগাঁওস্থ করপোরেট অফিসে ইনভিনসিবল বাংলাদেশি ক্যাম্পেইনের প্রথম ভিডিওটি উন্মোচন করা হয়। ভিডিওটি নির্মাণ করা হয়েছে মীরসরাইয়ের ডা. জামশেদ আলমের জীবনকে কেন্দ্র করে।

ডা. জামশেদ আলম মীরসরাইয়ের গর্ব। উপজেলায় মায়েদের নিরাপদ মাতৃত্বের জন্য ২০০২ সালে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন মাতৃকা-হাসপাতাল। সাহেবদিনগর গ্রামে ২০০৪ সালে ছৈয়দুল হক উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেন, এ ছাড়া ২০০৫ সালে  মাগন বিবি ফ্রি প্রাইমারি স্কুল এবং রাফিয়া খাতুন শিশু কানন স্কুলেরও প্রতিষ্ঠাতা তিনি।

এরপর নিজেদের উন্নয়ন ফোরামের মাধ্যমে সাইবেনিখিল গ্রামে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী শিশুদের জন্য রুপাইধন প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে পিছিয়েপড়া জনগোষ্ঠীকে এগিয়ে নিয়েছেন সামনের দিকে। তার উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের জন্য বিভিন্ন স্কুলে গড়ে তোলা হয়েছে পাঠাগার, সবাইকে বই পড়ার সুযোগ দিতে গণপাঠাগারও গড়ে তোলা হয়েছে।

উত্তরা মটরস লিমিটেড বাংলাদেশে দীর্ঘ ৪৫ বৎসর ধরে  অটোমোবাইল ব্যবসার পাশাপাশি সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে কাজ করে যাচ্ছে। এর মধ্যে অন্যতম পিছিয়ে পড়া ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়া জেলার চারগাছ উপজেলায় ১৯৪৪ সালে প্রতিষ্ঠা করে চারগাছ এনআই ভূঁইয়া বালক উচ্চ বিদ্যালয়, ১৯৭৩ সালে চারগাছ এনআই ভূঁইয়া ডিগ্রি কলেজ এবং ১৯৮১ সালে চারগাছ আফিয়া খাতুন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করে। পাশাপাশি স্বাস্থ্যক্ষেত্রে বিশেষ অবদান হিসেবে ২০০১ সালে জিরো ক্লাবফুট এবং কিউর ক্লেফ্ট (তালু কাটা) প্রজেক্ট চালু করেন।   

ইনভিনসিবল বাংলাদেশি ক্যাম্পেইনের অনুষ্ঠানে সম্মানের স্মারক হিসাবে উত্তরা মটরস ডা. জামশেদ আলমকে উপহার দিয়েছে একটি বাজাজ ভি১৫ বাইক। অনুষ্ঠানে জামশেদ আলমের হাতে বাইকের ডামি চাবি তুলে দেন উত্তরা মটরসের চেয়ারম্যান এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর জনাব মতিউর রহমান। 

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন উত্তরা মটরসের ডিএমডি  মুজিবুর রহমান, ডিএমডি ডুরান্ড মেহদাদুর রহমান, এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর কাজী এমদাদ হোসেন, হেড অব বিজনেস প্ল্যানিং নাইমুর রহমান এবং এশিয়াটিক মাইন্ডশেয়ারের অ্যাসোসিয়েট এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর তাসনুভা আহমেদ টিনা, ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর নূরুল হক সুমন ও সিনিয়র ম্যানেজার কাজী হাসান ফেরদৌস প্রমুখ। 

 

 



মন্তব্য