kalerkantho


দেশ পরিচিতি

৩০ মে, ২০১৮ ০০:০০



দেশ পরিচিতি

সুইজারল্যান্ড

সুইজারল্যান্ডের বেশির ভাগ জনগণ বাস করে মালভূমিতে। এর দক্ষিণে ইতালি, পশ্চিমে ফ্রান্স, উত্তরে জার্মানি এবং পূর্বে অস্ট্রেলিয়া ও লিচেন্সটেইন। ভূমিবেষ্টিত দেশটি আল্পস, সুইজ মালভূমি ও বনভূমি জুরা দিয়ে বিভক্ত। দেশটির মূল ভূখণ্ডের একটি বড় অংশ জুড়ে আল্পসের অবস্থান।

প্রাচীন সুইস কনফেডারেশনের প্রতিষ্ঠা মধ্য যুগের শেষ ভাগে। অস্ট্রিয়া ও বুরগুন্ডির বিরুদ্ধে একাধিক লড়াইয়ে জয়ের ফল হিসেবে কনফেডারেশন গঠিত হয়। হলি রোমান সাম্রাজ্যের কাছ থেকে সুইস কনফেডারেশন স্বাধীনতা পায় ১৬৪৮ খ্রিস্টাব্দে। দেশটি জাতিসংঘে যোগ দেয় বেশ পরে, ২০০২ সালে। তবে তাদের সক্রিয় পররাষ্ট্রনীতি রয়েছে। দেশটি বিশ্বশান্তির ক্ষেত্রে নিয়মিত মধ্যস্থতার ভূমিকা রাখে। রেড ক্রসের জন্মস্থান সুইজারল্যান্ড। এ ছাড়া বহু আন্তর্জাতিক সংস্থার অবস্থান রয়েছে দেশটিতে। ইউরোপিয়ান ফ্রি ট্রেড অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, তবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ইউরোপের অর্থনৈতিক এলাকা বা ইউরো জোনের সদস্য নয়।

বিশ্বের সবচেয়ে উন্নত দেশগুলোর মধ্যে সুইজারল্যান্ড অন্যতম। মাথাপিছু আয়ের দিক থেকে তাদের অবস্থান বিশ্বে অষ্টম। জিডিপির হিসাবে বিশ্বে নবম। এ ছাড়া সরকারের স্বচ্ছতা, মানবাধিকার, অর্থনৈতিক প্রতিযোগিতা এবং মানব উন্নয়ন সূচকেও তাদের অবস্থান প্রায় শীর্ষে। জীবনযাপনের গুণগত মান বিচারে সেরা শহরগুলোর অন্যতম জুরিখ ও জেনেভা।

 

একনজরে

পুরো নাম : সুইস কনফেডারেশন।

রাজধানী : বার্ন (কার্যত)।

সবচেয়ে বড় শহর : জুরিখ।

দাপ্তরিক ভাষা : জার্মান, ফরাসি, ইতালীয়, রোমানশ।

সরকার পদ্ধতি : ফেডারেল সেমিডাইরেক্ট ডেমোক্রেসি আন্ডার মাল্টি-পার্টি পার্লামেন্টারি ডিরেকটরিয়াল রিপাবলিক।

কেন্দ্রীয় পরিষদ : প্রেসিডেন্ট : আঁলা বেরসে।

ভাইস প্রেসিডেন্ট : উয়েলি মাওরের।

ফেডারেল চ্যান্সেলর : ওয়াল্টার থার্নহের।

আইনসভা : ফেডারেল অ্যাসেম্বলি।

উচ্চকক্ষ : কাউন্সিল অব স্টেট।

নিম্নকক্ষ : ন্যাশনাল কাউন্সিল।

আয়তন : ৪১ হাজার ২৮৫ বর্গকিলোমিটার।

জনসংখ্যা : ৮৪ লাখ এক হাজার ১২০।

ঘনত্ব : প্রতি বর্গকিলোমিটারে ২০২ জন।

জিডিপি : মোট ৫১৭ বিলিয়ন ডলার।

মাথাপিছু : ৬১ হাজার ৩৬০ ডলার।

মুদ্রা : সুইজ ফ্রাঁ।

জাতিসংঘে যোগ : ১০ সেপ্টেম্বর ২০০২।

 

দেশ পরিচিতি

 



মন্তব্য