kalerkantho


সরকারিভাবে জর্দান যাবে ৬৫০ মহিলা গার্মেন্টকর্মী

সরকারিভাবে বিনা খরচে জর্দান পাঠানো হবে মহিলা মেশিন অপারেটর। বাছাই পরীক্ষা হবে ১৬ ও ২৩ ফেব্রুয়ারি। বিস্তারিত জানাচ্ছেন ফরহাদ হোসেন

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



সরকারিভাবে জর্দান যাবে ৬৫০ মহিলা গার্মেন্টকর্মী

জর্দানে বিনা খরচে মহিলা মেশিন অপারেটর পাঠাবে বাংলাদেশ ওভারসিজ এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড সার্ভিসেস লিমিটেড (বোয়েসেল)। জর্দানের পোশাক প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান ক্লাসিক ফ্যাশন অ্যাপারেল ইন্ডাস্ট্রি লিমিটেড বাংলাদেশ থেকে এ কর্মী নেবে। দেশটিতে যাওয়ার সুযোগ পাবে ৬৫০ জন মহিলা মেশিন অপারেটর। বিজ্ঞপ্তিটি পাওয়া যাবে www.boesl.org.bd ওয়েবসাইট ও goo.gl/RcYThi লিংকে।

 

আবেদনের যোগ্যতা

বোয়েসেলের উপমহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন ও অর্থ) নূর আহমেদ জানান, সাক্ষরজ্ঞান থাকলেই  চলবে। তৈরি পোশাক কারখানায় মেশিন অপারেটর পদে দুই-তিন বছরের কাজের অভিজ্ঞতা থাকলে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। বয়স হতে হবে ১৮ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে। বাংলাদেশের পাসপোর্টধারী হতে হবে, থাকতে হবে পাসপোর্টের মেয়াদ।

 

বাছাই প্রক্রিয়া

কাজে যেতে আগ্রহীরা আগামী ১৬ ও ২৩ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ-জার্মান টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার, মিরপুর-২ ঠিকানায় সকাল ৭টায় হাজির হয়ে বাছাই প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে পারবেন। যেকোনো জেলার প্রার্থীরা এ পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন। একই দিনে মেশিন টেস্ট ও সাক্ষাৎকার নিয়ে প্রার্থী বাছাই করা হবে।

 

সঙ্গে নিতে হবে

ক্লাসিক ফ্যাশন অ্যাপারেল ইন্ডাস্ট্রি লিমিটেডের বাংলাদেশ প্রতিনিধি রফিকুল ইসলাম জানান, সাক্ষাৎকারের সময় সাদা ব্যাকগ্রাউন্ডে চার কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি, পাসপোর্ট এবং পাসপোর্টের ছবিযুক্ত অংশের এক সেট রঙিন ও চার সেট সাদাকালো ফটোকপি রাখতে হবে। সঙ্গে নিতে হবে বর্তমানে কর্মরত অফিসের পরিচয়পত্র (পরিচয়পত্র না থাকলে হাজিরা কার্ড) এবং শিক্ষাগত যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতার সনদ (যদি থাকে)।

 

বাছাইয়ে যা দেখা হয়

রফিকুল ইসলাম জানান, বেশ কয়েক ধরনের মেশিনে কাজ দিয়ে যাচাই করা হবে কাজের দক্ষতা। যোগ্য মনে হলে সাক্ষাৎকারের জন্য মনোনীত করা হবে। ভাইভা নেওয়া হবে সঙ্গে সঙ্গেই। ভাইভা বোর্ডে থাকবেন বোয়েসেল ও কম্পানির প্রতিনিধিরা। ভাইভায় প্রার্থীর নিজের সম্পর্কে, কাজের বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়। বিদেশে কাজে যাওয়ার আগ্রহ, স্বাস্থ্যগত দিক ও পরিবারের সম্মতি ইত্যাদিও দেখা হয়।

 

বাছাইয়ের পর করণীয়

নূর আহমেদ জানান, বাছাইয়ের দিতে হবে মেডিক্যাল টেস্ট ও ফিঙ্গার প্রিন্ট। মেডিক্যাল টেস্টের রিপোর্টসহ অন্যান্য কাগজপত্র জমা দিতে হবে বোয়েসেলের অফিসে। পরে সব কার্যক্রমের বিষয়ে প্রার্থীর মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে জানানো হবে। বৈধপথে লেনদেনের জন্য যাওয়ার আগে প্রার্থীকে নিজ নামে নির্ধারিত ব্যাংকে হিসাব খুলতে হবে।

 

চাকরির শর্ত

চুক্তি অনুসারে প্রাথমিকভাবে তিন বছরের জন্য নেওয়া হবে কর্মীদের। চাইলে বাড়ানো যাবে চুক্তির মেয়াদ। সপ্তাহে ৬ দিন, দৈনিক আট ঘণ্টা কাজ করতে হবে। কর্মী চাইলে অতিরিক্ত সময় কাজ করতে পারবেন। সে ক্ষেত্রে অতিরিক্ত কর্মঘণ্টার মজুরি পাওয়া যাবে। নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান কর্মীদের থাকা-খাওয়া ও প্রাথমিক চিকিৎসা সুবিধা দেবে। চাকরিতে যোগদানের বিমানভাড়া ও চাকরি শেষে দেশে ফিরে আসার বিমান ভাড়াও দেবে কম্পানি।

 

খরচাপাতি

নূর আহমেদ জানান, নির্বাচিতদের বোয়েসেলের সার্ভিস চার্জ, বহির্গমন ট্যাক্স, ১৫ শতাংশ ভ্যাট ও অন্য সব সরকারি ফি নিয়োগকারী কম্পানি পরিশোধ করবে। প্রার্থীদের ভিসা ও যাওয়া-আসার বিমান টিকিটও দেবে নিয়োগ কর্তৃপক্ষ। প্রার্থীকে শুধু মেডিক্যাল ফির জন্য ১০০০ টাকা, ফিঙ্গার প্রিন্টের ফি বাবদ ২২০ টাকা ও অঙ্গীকারনামার স্ট্যাম্প কেনার জন্য ৩০০ টাকা খরচ করতে হবে।

 

বেতন-ভাতা

রফিকুল ইসলাম জানান, প্রতি মাসে ১১৭.৫ জর্দানি দিনার (বাংলাদেশি টাকায় ১৩ হাজার ৭৪৭ টাকা) বেতন পাবেন। এ বেতন বাড়তে পারে আগামী মার্চ থেকে। এর সঙ্গে দেওয়া হবে ওভারটাইমের বাড়তি টাকা।

এ ছাড়া হাজিরা ভাতা, টার্গেট ভাতা, বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট, উৎসব বোনাসসহ অন্যান্য সুবিধা দেওয়া হবে।

 

যোগাযোগ

বোয়েসেল, প্রবাসী কল্যাণ ভবন (৫ম তলা), ৭১-৭২ ইস্কাটন গার্ডেন রোড, রমনা, ঢাকা। ফোন : ০২-৯৩৩৬৫০৮, ৯৩৬১৫১৫


মন্তব্য