kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দেশ পরিচিতি

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



দেশ পরিচিতি

গাম্বিয়া

পশ্চিম আফ্রিকার একটি স্বাধীন রাষ্ট্র গাম্বিয়া। এর উত্তর, পূর্ব ও দক্ষিণে সেনেগাল।

পশ্চিমে আটলান্টিক মহাসাগর। গাম্বিয়া নদী দেশটির মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়ে আটলান্টিক মহাসাগরে পড়েছে। এই নদীর নামানুসারেই দেশের নাম। অতীতে গাম্বিয়া বহু দেশের উপনিবেশ হওয়ার প্রধান কারণও এই নদী।

উনিশ শতকে ব্রিটিশ উপনিবেশ ছিল। তারও আগে দেশটি পর্তুগিজ উপনিবেশ ছিল। স্বাধীন হয় ১৯৬৫ সালে। স্বাধীনতার পর থেকে দেশটিতে মাত্র দুজন প্রেসিডেন্টকে দেখা গেছে। দাওদা জাওয়ারা ১৯৭০ সাল থেকে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত শাসন করেন। রক্তপাতহীন সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে প্রেসিডেন্টকে ক্ষমতাচ্যুত করে  ক্ষমতায় আসেন সেনা কর্মকর্তা ইয়াহিয়া জামেহ। তিনি এখন পর্যন্ত ক্ষমতায়।

গাম্বিয়া কৃষিপ্রধান দেশ। মাছ ধরাও দেশটির অন্যতম প্রধান পেশা। এক-তৃতীয়াংশ মানুষ দরিদ্র। তাদের দৈনিক আয় ১.২৫ ডলারেরও কম। চীনাবাদাম প্রধান উত্পাদিত শস্য এবং প্রধান রপ্তানি পণ্য। পর্যটনশিল্প থেকেও আয় হয়। দেশটির ৯০ শতাংশ মানুষ মুসলমান। গত ডিসেম্বরে দেশটির প্রেসিডেন্ট একে ইসলামী প্রজাতন্ত্র ঘোষণা করেন।

এক নজরে

পুরো নাম : ইসলামী প্রজাতন্ত্র গাম্বিয়া।

রাজধানী : বুঞ্জুল।

সবচেয়ে বড় শহর : সেরেকুন্ডা।

সরকারি ভাষা : ইংরেজি।

জাতিগোষ্ঠী : মানডিনকা (৪২ শতাংশ), ফুলা (১৮ শতাংশ), উলোফ (১৬ শতাংশ), জোলা (১০ শতাংশ), সেরাহুলি (৯ শতাংশ), অন্যান্য আফ্রিকান (৪ শতাংশ), নন-আফ্রিকান (১ শতাংশ)।

সরকার পদ্ধতি :  প্রেসিডেন্সিয়াল প্রজাতন্ত্র।

প্রেসিডেন্ট : ইয়াহিয়া জামেহ।

স্বাধীনতা : ব্রিটেন থেকে ১৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৫।

আয়তন : ১০ হাজার ৬৮৯ বর্গকিলোমিটার।

ঘনত্ব : প্রতি বর্গকিলোমিটারে ১৭৬.১ জন।

জিডিপি : মোট ৩.৪৯১ বিলিয়ন ডলার।

মাথাপিছু : ৩৭১ ডলার।

মুদ্রা : ডালাসি।

জাতিসংঘে যোগদান : ২১ অক্টোবর ১৯৬৫।

► গ্রন্থনা : তামান্না মিনহাজ


মন্তব্য