kalerkantho

উৎসবের বাড়িতে শোকের মাতম

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উৎসবের বাড়িতে শোকের মাতম

মায়ের সঙ্গে রোহান

তানজিল হাসান রোহান। নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির বিবিএর ছাত্র। বাড়ি পুরান ঢাকার আগামসিহ লেন। বন্ধুদের সঙ্গে চকবাজারের চুড়িহাট্টায় ঘুরতে এসে লাশ হয়ে গেছেন! বন্ধু আরাফাতের মৃতদেহ পাওয়া গেলেও, এখনো শনাক্ত করা যায়নি রোহানের লাশ। সেজন্য ডিএনএ রিপোর্টের অপেক্ষায় রয়েছে তাঁর পরিবার। পরিবারে তিন ভাই এক বোনের মধ্যে রোহান ছিলেন সবার বড়। মা রুবিনা ইয়াসমিনের আর্তনাদে ভারী হয়ে আছে পরিবেশ। বাবা হাসান খান সন্তানের ছবির দিকে নির্বাক তাকিয়ে থাকেন। একমাত্র বোনের বিয়ে নির্ধারণ হয়েছিল ১০ মার্চ। উত্সবের বাড়িতে এখন শোকের মাতম। এত মৃতদেহের ভিড়ে নিজের ভাইকে এখনো খুঁজে না পাওয়ায় কোনো সান্ত্বনাই মানছেন না বোনটি। রোহান উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশ যাওয়ার স্বপ্ন দেখত। আগুনে পুড়ে গেছে তাঁর সেই স্বপ্ন।

আরো যাঁরা : বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসে পড়তেন রেহেনুমা তারান্নুম দোলা। ফাতেমা-তুজ জোহরা বৃষ্টি পড়তেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্ত গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজে। ‘প্রজন্মকণ্ঠ’ আবৃত্তি সংগঠনে জড়িত ছিলেন তাঁরা। সেটির অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে একসঙ্গে বাড়ি ফিরছিলেন। রাত সাড়ে ১০টায় পরিবারের সঙ্গে তাঁদের শেষ যোগাযোগ হয়। তখন তাঁদের অবস্থান ছিল দুর্ঘটনাস্থলের কাছাকাছি। এর পর থেকে নিখোঁজ তাঁরা। হাসপাতালে মৃতদেহের ভিড়েও খোঁজ মেলেনি। পরিবার নিশ্চিত নয়, তাঁরা অগ্নিকাণ্ডটির শিকার, নাকি পড়েছেন অন্য কোনো বিপদে।

মন্তব্য