kalerkantho


ক্যাম্পাস টিপস

মনোযোগের শর্টকাট

পড়ায় মনোযোগ বাড়ানোর টিপসের অভাব নেই। তবে এর মধ্যে বেশির ভাগই ম্যাড়ম্যাড়ে সমাধান। গাইডলাইন ফলো করাটাই যেন ভীষণ একঘেয়ে। তাই এবার থাকছে ব্যতিক্রম কিছু কৌশল। জানাচ্ছেন ফয়সল আবদুল্লাহ

১০ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



মনোযোগের শর্টকাট

বিদ্যুৎ নেই? তাতে কী! মনোযোগ ধরে রাখতে সাহায্য করবে বাহারি এলইডি বাতি । মডেল নাফিসা, ছবি ধ্রুব নীল

অনেক অনেক অ্যাপ

স্মার্টফোনটাকে কাজের কাজি বানিয়ে ফেলো। দরকার থাকুক আর না থাকুক, মেমোরি খালি করে স্টাডি অ্যাপ দিয়ে ভরে ফেলো স্ক্রিন। যখনই ফোনের পর্দায় বুড়ো আঙুল দিয়ে স্লাইড করতে থাকবে, চোখের সামনে পড়বে অ্যাপগুলো। আর তখন ক্লিকও করতে ইচ্ছা করবে, এভাবে চোখের সামনে বারবার পড়ার বস্তু পড়ে গেলে সেটা মাথায় ঢুকতে কতক্ষণ!

 

খাও-দাও আর মজা করো

নাওয়া-খাওয়া ফেলে আসলে পড়া হয় না। বুঝেশুনে পড়ার মতো পরিশ্রমের কাজ আর হয় না। এ জন্য চাই মজার মজার খাবার। পড়া নিয়ে টেনশন করতে বসার আগে একটা আইসক্রিম বা আপেল খাওয়ার প্রতি মনোযোগ দাও। পড়াটাও হয়ে উঠবে সুস্বাদু। হজম হয়ে যাবে কেমিস্ট্রির কঠিন সব সূত্রও।

 

অনলাইন সার্চ

এখন অনলাইনে সার্চ করে কয়জন! ব্রাউজার খুলেই তো অ্যাড্রেস বারে ‘এফ’ চাপ দিয়েই এন্টার ‘কি’টা চেপে বসো, তাই না? তারচেয়ে পড়ার কোনো একটা টপিক বাছাই করে বিশেষ কোনো কারণ ছাড়াই গুগল করে বসো। হাজারটা আর্টিক্যাল চলে আসবে সামনে। এর মধ্যে পেয়ে যেতে পারো এমন কিছু পেজ, যেটা পড়লে হয়তো খুলে যাবে দীর্ঘদিনের লেগে থাকা কোনো জট। তখন ভাববে, ওহে থিওরি অব রিলেটিভিটি, এত দিন কোথায় ছিলে! ইউটিউবেও কিন্তু মজার মজার টিউটরিয়ালের অভাব নেই। তাই পাঠ্য বইটাকে মাঝে মাঝে একটু বিশ্রামাগারে পাঠিয়ে নেটের সাগরে পড়তে বসো।

 

আবার লেখো

যাদের বুঝতে একটু দেরি হয় বা সহজে মনে থাকে না, তাদের জন্য একখানা চটজলদি টিপস—ক্লাসের নোটগুলো কষ্ট করে আবার লিখে ফেলো। সম্ভব হলে একই জিনিস দুবার লেখো। পছন্দের গান শুনতে শুনতে লেখো। স্মৃতির কোনো এক চেম্বারে দেখবে সেই পড়াটা ঘাপটি মেরে বসে যাবে।

 

আলো আমার আলো

এ বিষয়টি অনেকেই বেশ অবহেলা করে। পড়ার জন্য চাই বেশি বেশি আলো। যত আলো তত মনোযোগ। বিজ্ঞান এমনটাই বলে। এখন তো বাজারে বাহারি এলইডির অভাব নেই। প্রয়োজনে বাড়তি ল্যাম্প ব্যবহার করো। কম আলোয় পড়া মানেই সময় নষ্ট।

 (ফাস্টওয়েভ ডটকম থেকে)

 



মন্তব্য