kalerkantho


আত্মবিশ্বাসী নাবিলা

বিতর্ক আর সংগীতের চর্চা চলছে ছোটবেলা থেকেই। এ ছাড়া বিজ্ঞান প্রজেক্ট, কুইজ, মুন, রচনা প্রতিযোগিতাসহ আরো নানা বিষয়ে পুরস্কার পাচ্ছে নিয়মিত। পুরস্কারে সেঞ্চুরি হাঁকানো আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী নোশিন নাবিলা স্নেহার গল্প শোনাচ্ছেন জুবায়ের আহম্মেদ

৬ জুন, ২০১৮ ০০:০০



আত্মবিশ্বাসী নাবিলা

২০১৬ সালের কথা। নটর ডেম কলেজে অনুষ্ঠিত হলো ইন্টারন্যাশনাল নেচার সামিট-২০১৬। ২৮টি দেশের প্রতিযোগীরা অংশগ্রহণ করে এতে। এদের মধ্যে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থী নাবিলাও ছিল। সব দেশের প্রতিযোগীদের পেছনে ফেলে বিজয়ী হয় নাবিলা। যখন নাবিলা যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের কাছ থেকে পুরস্কার গ্রহণের জন্য মঞ্চে ওঠে, সবাই তখন তার নাম না বলে, ‘বাংলাদেশ’ বলে উল্লাসধ্বনি করেছিল। ওটাই এখন পর্যন্ত নাবিলার জীবনের সবচেয়ে গর্বের মুহূর্ত। ছোটবেলা থেকেই জটিল কোনো বিষয় নিয়ে চিন্তাভাবনা করতে ভালো লাগত। আর সব সময়ই শ্রোতার খোঁজ করত সে। অনেক মানুষের সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলাকে বেশ উপভোগ করে সে। তাই ধীরে ধীরে বিতর্কের পথে পা বাড়ায়। একটি বিষয় খুব ভালোভাবে শিখেছে—বিতর্ক করতে নিজের মতামত ও ব্যক্তিত্ব থাকা যতটা প্রয়োজন, তার চেয়ে বেশি প্রয়োজন পরিস্থিতি অনুযায়ী নিজের জ্ঞানকে কাজে লাগানো।

বাবা সামরিক কর্মকর্তা হওয়ায় বারবার বদলির কারণে নতুন নতুন পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নিতে হয়েছে তাকে। তাই নতুন নতুন বন্ধুও বানাতে হয়েছে। অবশ্য নতুন নতুন বন্ধু বানাতে বেশ ভালো লাগে তার।

স্কুলে যেকোনো প্রতিযোগিতা হলে সবার আগে হাজির নাবিলা। পুরস্কার তাকে পেতেই হবে। ‘যখনই কোনো প্রতিযোগিতায় খারাপ ফল করতাম, তখন বাসায় এসে আর কখনো প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করব না বলে কেঁদেকেটে বুক ভাসাতাম। কিন্তু পরদিন আরো বেশি অনুশীলন করে হাজির হতাম পরের প্রতিযোগিতায়।’ ২০১৭ সালের নভেম্বরে চীনের গ্লোবাল ক্লাইমেট চেঞ্জ ইন দ্য পারসপেকটিভ অব এশিয়া সম্মেলনে অংশগ্রহণ করে নাবিলা। মঞ্চে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশকে নিয়ে একটি অসাধারণ বক্তব্য দেয়। তখন সবাই তার বক্তব্য শুনে মুগ্ধ হয়ে বাহবা দিতে থাকে। নাবিলা ওই সম্মেলনে বিশেষ বক্তা নির্বাচিত হয়। এত কাজের পাশাপাশি পড়াশোনায়ও সে তুখোড়। জেএসসি পরীক্ষায় বৃত্তি এবং এসএসসিতে গোল্ডেন এ+ পেয়েছে। নাবিলা বলে, ‘একটা ক্লাসরুমে অনেক শিক্ষার্থী থাকে। কিন্তু নিজের সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে নিজের একটা আলাদা অস্তিত্ব, বিশেষ একটা পরিচয় তৈরি করাকে আমার শিক্ষাজীবনের শ্রেষ্ঠ অর্জন বলে মনে করি।’ অবসরে বই পড়তে ভালো লাগে নাবিলার। গল্পের বই, সায়েন্স ফিকশন তার বেশি পছন্দ। বাসায় বুকসেলফে অনেক বই সাজানো আছে তার। সময় পেলেই সেখান থেকে বই নিয়ে পড়তে শুরু করে। এ ছাড়া চিত্রাঙ্কন তার বেশ পছন্দের। খাতায় নানা ধরনের নকশা এঁকেও ভরিয়ে ফেলে কখনো কখনো। ভালো গানও গায়, বিশেষ করে স্কুলপর্যায়ে বেশ কয়েকটি পুরস্কার আছে সংগীতে।

২০১৫ সালে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ বিতর্ক ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এবং ২০১৬ সালে একই ক্লাবের ভাইস প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করে। এখন আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজের বিতর্ক ক্লাবের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করছে। এ ছাড়া নাবিলা অনলাইন পোর্টালে নিয়মিত লেখালেখি করে। আন্তর্জাতিক পর্যায়ের বিতর্ক প্রতিযোগিতা আইইউবি অ্যাসেন্সন-২০১৭-এ বিচারকের দায়িত্ব পালন করে সে।

বিভিন্ন প্রতিযোগিতার অর্জনগুলো নাবিলাকে আত্মবিশ্বাসী করে তুলেছে। বড় হলে নাবিলা একজন সফল নারী উদ্যোক্তা হতে চায়। চায় তার কাজের মাধ্যমে অন্যকে অনুপ্রাণিত করতে। পাশাপাশি উপস্থাপক হওয়ার ইচ্ছা আছে তার।

নাবিলার যত পুরস্কার

 ২০১৩ সালে স্কুলপর্যায়ে আয়োজিত বিজ্ঞান মেলায় বিজ্ঞান প্রজেক্টে দ্বিতীয়।

 ২০১৩ সালে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ সরকার আয়োজিত জাতীয় প্রবন্ধ প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয়।

 ২০১৪ সালে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের সাংস্কৃতিক সপ্তাহে উপস্থিত বক্তৃতা ও কুইজ প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয়।

 ২০১৫ সালে বাংলাদেশ মডেল ইউনাইটেড নেশনসে (মুন) বেস্ট ডেলিগেট নির্বাচিত।

 ২০১৫ সালে ইন্টারন্যাশনাল নেচার সামিটে দেয়াল পত্রিকা প্রতিযোগিতায় প্রথম পুরস্কার লাভ।

 ২০১৬ সালে নটর ডেম কলেজ আয়োজিত ‘ইন্টারন্যাশনাল নেচার সামিট-২০১৬’-তে প্রথম পুরস্কার। একই সামিটে দেয়াল পত্রিকা প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় পুরস্কার লাভ।

 ২০১৬ সালে ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ আয়োজিত ভাষা প্রতিযোগিতায় প্রথম পুরস্কার লাভ।

 ২০১৭ সালে আদমজী ইন্ট্রা. মডেল ইউনাইটেড নেশনসে বেস্ট ডেলিগেট নির্বাচিত।

 আদমজী ন্যাশনাল ডিবেট টুর্নামেন্ট-২০১৮-তে সেমিফাইনালিস্ট।

 ২০১৮ সালে আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজ আয়োজিত সাংস্কৃতিক সপ্তাহে বিতর্ক প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন  ও শ্রেষ্ঠ বক্তার পুরস্কার লাভ। এ ছাড়া ছোট-বড় প্রায় শতাধিক পুরস্কার আছে তার।



মন্তব্য