kalerkantho


ক্রিকেটে সেরা

৪ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



প্রতিষ্ঠার পর থেকেই বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি সহশিক্ষা কার্যক্রমের প্রতি জোর দিচ্ছে। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে সাতটি ক্লাব আছে—‘কালচারাল ক্লাব’, ‘সোশ্যাল ক্লাব’, ‘ডিবেট ক্লাব’, ‘স্পোর্টস ক্লাব’, ‘কম্পিউটার ক্লাব’, ‘বিজনেস ক্লাব’ ও ‘ফার্মা ক্লাব’। ডিবেট ক্লাবটি ২০১১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। ক্লাবের সভাপতি ইংরেজি বিভাগের ভারপ্রাপ্ত প্রধান ও সহকারী অধ্যাপক শেখ আলাউদ্দিন বলেন, “সারা দেশের ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে বিতর্কচর্চা জনপ্রিয় করাই আমাদের ক্লাবের মূল লক্ষ্য। সেই উদ্যোগের অংশ হিসেবে ২০১৬ সালে ‘বাংলাদেশের সড়কব্যবস্থা কতটুকু নিরাপদ’-এর পক্ষে-বিপক্ষে আমরা বিতর্ক প্রতিযোগিতা করেছি। আশা, পিপলস, স্টামফোর্ড ও আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় সেখানে অংশ নিয়েছে। পরের বছর ‘নির্বাচন কমিশনের নির্বাচনী রোড ম্যাপ আগামী নির্বাচনব্যবস্থার ওপর বিশ্বাসযোগ্যতা বাড়িয়েছে’—এই শিরোনামে সরকারি দলে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও বিরোধী দলে আমরা ছিলাম। এটিএন বাংলার সংসদীয় ধারার ইউসিবি পাবলিক ডিবেটেও অংশ নিয়েছি।” বিইউ সোশ্যাল ক্লাবের সভাপতি সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রধান, সহযোগী অধ্যাপক ও ‘ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাসুরান্স সেল (আইকিউএসি)’র পরিচালক ড. এম এম এনামুল আজিজ বলেন, ‘আমরা ২০১২ সালে বুড়িগঙ্গার বর্জ্য অপসারণ করেছি, ধানমণ্ডি লেকের আবর্জনা পরিষ্কার করেছি। ২০১৪ সালে গাজীপুরের ভাওয়াল বদরে আলম কলেজে যৌন নিপীড়নের ওপর স্থানীয় শিক্ষকদের নিয়ে আলোচনাসভা করেছি। পরের বছর আদাবরের ঢাকা উদ্যানে ৫০০ গাছ রোপণ করেছি। গত বছর শীতে নেত্রকোনা, পঞ্চগড় ও কুড়িগ্রামের গরিব মানুষের মধ্যে এক হাজার ২০০টি কম্বল বিতরণ করেছি। এ ছাড়া রোহিঙ্গাদের মাঝে খাবার বিতরণসহ তাঁদের জন্য ১০০টি আধুনিক শৌচাগার তৈরি করে দিয়েছি।’ তবে ক্লাবগুলোর মধ্যে স্পোর্টস ক্লাবই সবচেয়ে জনপ্রিয়। এই ক্লাবের উদ্যোক্তা সংগঠক ও পরিচালক (টেকনিক্যাল) কাজী সাইফ সাদাত বলেন, ‘এই বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতি সেমিস্টারে খেলোয়াড় কোটায় দুজন ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করা হয়। তারা বিনা খরচে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে। কোটায় ভর্তি হওয়া উল্লেখযোগ্য খেলোয়াড়দের মধ্যে আছেন—জাতীয় ক্রিকেট দলের পেসার মো. আল-আমিন হোসেন, কলাবাগান ক্রিকেট দলের শাওন খন্দকার, অগ্রণী ব্যাংক ও রংপুর বিভাগীয় দলের মেহরাব হোসেন জোশি, ট্যালেন্ট হান্ট ক্রিকেট ক্লাবের রাইয়ান আনাস অন্যতম। ফলে ভালো খেলোয়াড়রাই আমাদের দলে রয়েছে। বিইউ ক্রিকেট দলের ক্যাপ্টেন ও প্রাণ ভোমরা সাইমন আহমেদ প্রিমিয়ার লীগে অগ্রণী ব্যাংক, ন্যাশনাল লীগে রংপুর বিভাগের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান।’ ক্লাব ম্যানেজার সাদিক ইকবাল বলেন, ‘আমরা ২০১৫ সালে ভারতের কলকাতায় অনুষ্ঠিত বিবেক কাপ টি-টোয়েন্টিতে ভারতের ন্যাশনাল ক্রিকেট একাডেমিকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছি। ২০১৬ সালে আন্ত বিশ্ববিদ্যালয় ক্রিকেট লীগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছি। ২০১৭ সালে চতুর্থ ক্লেমন ইনডোর ইউনি ক্রিকেট টুর্নামেন্টে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছি। এ ছাড়া সেজান কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ও এলএমএস ইউনি ক্রিকেট টুর্নামেন্টেও অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছি।’ বিইউ কালচারাল ক্লাব বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার আয়োজন করা ছাড়াও নিয়মিত চলচ্চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করে, জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনে বিশ্ববিদ্যালয়কে সাহায্য ও সহযোগিতা করে।


মন্তব্য