kalerkantho


ক্যাম্পাস ক্লাব

ভাষাচর্চার অভিযাত্রীরা

ক্যাম্পাস ক্লাবের নিয়মিত আয়োজনে এবার থাকছে ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজের রেমিয়ান্স ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাবের গল্প। বিস্তারিত লিখেছেন জুবায়ের আহম্মেদ

১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ভাষাচর্চার অভিযাত্রীরা

শিক্ষার্থীদের ভাষাচর্চায় আগ্রহী করে তুলতে ২০১১ সালে যাত্রা শুরু রেমিয়ান্স ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাবের। কলেজের সে সময়কার একাদশ শ্রেণির ছাত্র রাফি, আদনান, আহসানসহ একাদশ শ্রেণির আরো কিছু শিক্ষার্থী এবং ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক নূরুন নবীর চেষ্টায় প্রতিষ্ঠিত হয় ক্লাবটি। এর পরপরই ‘আন্ত কলেজ ভাষা ও কুইজ প্রতিযোগিতা ২০১১’ আয়োজন করে তারা। প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থীরা দারুণ উত্সাহ ও আগ্রহ নিয়ে অংশগ্রহণ করে।

২০১৩ সালে ক্লাবটি আয়োজন করে প্রথম জাতীয় ভাষা উত্সবের। আর প্রথম আয়োজনেই বাজিমাত। খুব সাড়া জাগায় উত্সবটি। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৫ সালে দ্বিতীয়, ২০১৬ সালে তৃতীয় এবং ২০১৭ সালে চতুর্থ ভাষা উত্সব আয়োজন করে রেমিয়ান্স ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব ।

ক্লাবটির সাফল্যের পেছনে অন্যতম কারিগর ইংরেজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সাবেরা সুলতানা। ক্লাবটি প্রতিষ্ঠার পর থেকে এখন প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে সাহায্য করছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা জানি, ভাষা ছাড়া যোগাযোগ অসম্পূর্ণ ও অসম্ভব। তাই শুদ্ধ ভাষাচর্চার প্রয়োজন নিরন্তর। এ বিষয়টি সামনে রেখেই রেমিয়ান্স ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব প্রতিবছর আয়োজন করে ভাষা উত্সবের। এর ফলে কিশোর-কিশোরীরা শুদ্ধ ভাষাচর্চায় আগ্রহী হবে।’

একজন মানুষের আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিজেকে মেলে ধরার জন্য ইংরেজি বিষয়ে দক্ষতা গুরুত্বপূর্ণ। অনেক শিক্ষার্থীই ইংরেজিকে ভয় পায়। এই ভীতি কাটিয়ে তোলার জন্য সম্প্রতি রেমিয়ান্স ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব ও রবি টেন মিনিট স্কুলের মধ্যে এক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। ফলে টেন মিনিট স্কুল রেমিয়ান্স ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাবকে শিক্ষাসংক্রান্ত বিষয়ে সহযোগিতা করবে। ক্লাবের বিভিন্ন প্রগ্রামে তারা আসবেন। রেমিয়ান্স ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাবের ভাষাবিষয়ক কর্মশালায় টেন মিনিট স্কুল সাহায্য করবে। এ ছাড়া অনলাইনে রেমিয়ান্স ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাবের পেজ থেকে প্রতি সপ্তাহে  ইংরেজি লাইভ ক্লাসে ব্যবস্থা করা হয়েছে। টেন মিনিট স্কুল ওই লাইভ ক্লাসটি তাদের নিজেদের পেজ থেকে শেয়ার করে দেবে।

ক্লাবের সভাপতি নিলয় রায় বলেন, ‘প্রতিষ্ঠার পর অতি স্বল্প সময়ের মধ্যেই আমরা অনেক বড় একটা ভাষা উত্সব আয়োজন করতে পেরেছি, যা আমাদের বড় অর্জন। শিক্ষার্থীদের ভাষাচর্চায় আগ্রহী করে তোলাই মূলত আমাদের ক্লাবের লক্ষ্য।’

ভাষা ও সাহিত্যবিষয়ক ওয়ার্কশপ, ছাত্রদের সাহিত্য বিষয়ে আগ্রহী করা, বাইরের বিভিন্ন ভাষা প্রতিযোগিতায় ছাত্রদের অংশগ্রহণ করানো এবং ভাষাবিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে ক্লাবটি। প্রথম ইসিএল ইন্টার স্কুল অ্যান্ড কলেজ ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব চ্যাম্পিয়নশিপ ২০১৭-তে রানার-আপ হয় রেমিয়ান্স ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব। ‘সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতা ২০১৫’-তে আঞ্চলিক পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হন এ ক্লাবের সাবেক সভাপতি মুশফিকুর আলম। ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মুনতাসির ইসলাম বলেন, ‘আমাদের ক্লাবের সদস্যরা বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে অনেক পুরস্কার পেয়েছেন। ভাষার প্রতি ভালোবাসা থেকেই ক্লাবের সঙ্গে যুক্ত হওয়া। কিন্তু ক্লাবটি এখন শুধু অবসরের সঙ্গী নয়, বরং একটি পরিবার হয়ে উঠেছে।’

সংস্কৃতির সঙ্গে ভাষার মেলবন্ধন সৃষ্টির জন্য এবং ইংরেজি ভাষাচর্চা শুধু ঢাকার শিক্ষার্থীদের মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে গ্রামপর্যায়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যেও ছড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে ক্লাবটির। এ ছাড়া ইংরেজি বলায় শিক্ষার্থীদের আগ্রহী করতেও কাজ করছে তারা। ক্লাবের সাবেক সভাপতি আসিফ সাঈদ বলেন, ‘রেমিয়ান্স ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব তুলনামূলক নতুন ক্লাব হলেও এরই মধ্যে বেশ সমৃদ্ধ একটি ক্লাব হয়ে উঠেছে। ভবিষ্যতে শিক্ষার্থীদের ভাষাচর্চায় আগ্রহী করতে ক্লাবটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।’
 



মন্তব্য