kalerkantho


প্রজেক্ট ইকো ব্রিক

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



প্রজেক্ট ইকো ব্রিক

উত্সবে নিজেদের প্রজেক্ট ইকো ব্রিক দেখাচ্ছে নাহিয়ান ও সৈকত

বাংলাদেশে বায়ু দূষণের একটি অন্যতম কারণ ইটের ভাটা। একদিকে কালো ধোঁয়া, অন্যদিকে ভাটা তৈরিতে লাগে প্রচুর কাঠ। এর দূষণ দূর করার একটি উপায় বের করেছে ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির দুই শিক্ষার্থী আল নাহিয়ান নোমান ও সৈকত রহমান। উত্সবের প্রজেক্ট ডিসপ্লে সেগমেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে তারা। প্রজেক্টের নাম ‘ন্যাচারাল ব্রিক’ তথা পরিবেশবান্ধব ইট।

তারা এ ইট বানিয়েছে ফ্লাই অ্যাশ দিয়ে। বাংলাদেশে যে বিদ্যুত্ উত্পাদন কেন্দ্রগুলো আছে সেখানে অনেক ফ্লাই অ্যাশ তৈরি হয়, যার প্রধান উপাদান অ্যালুমিনা, সিলিকা, সালফার প্রভৃতি। এটি উন্মুক্ত অবস্থায় থাকলে ওই অঞ্চলে অ্যাসিড বৃষ্টি হতে পারে। তাই তৈরি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই এটাকে ব্যবহার করতে হবে। এই ফ্লাই অ্যাশের সঙ্গে লাইম, জিপসাম ও বালু বিশেষ অনুপাতে মিশিয়ে প্রক্রিয়াজাত করা হয়। এরপর ছাঁচে বসিয়ে ইটের আকার দিয়ে শুকাতে হয়। এরপর ইটের আকৃতিতে যেটা তৈরি হবে সেটাকে পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে কমপক্ষে ২-৩ দিন। পানি ও ক্যালশিয়াম অক্সাইডের বিক্রিয়ায় তাপ উত্পাদিত হবে ও এ তাপে ইটটি শক্তিশালী হবে।
একটি সাধারণ ইট তৈরির খরচ প্রায় ৮ টাকা। অন্যদিকে ফ্লাই অ্যাশ দিয়ে নাহিয়ান ও সৈকতের বানানো ইটের খরচ ৪.২৫ টাকা।



মন্তব্য