kalerkantho


খরুচে পাঠশালা

বিশ্বের ব্যয়বহুল স্কুলগুলোর প্রথম ১০টিই সুইজারল্যান্ডে। প্রথম পাঁচটির খবর জানাচ্ছেন সজল সরকার

২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



খরুচে পাঠশালা

কলেজ আলপিন ইন্টারন্যাশনাল বিউ সলিল

১৯১০ সালে প্রতিষ্ঠিত কলেজ আলপিন ইন্টারন্যাশনাল বিউ সলিল সুইজারল্যান্ডের পুরনো বোর্ডিং স্কুলের মধ্যে অন্যতম। বিশ্বের তৃতীয় ব্যয়বহুল এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বার্ষিক খরচ প্রায় ৭৬ লাখ টাকা।

সুইজ আল্পসে সমুদ্র সমতল থেকে প্রায় এক হাজার ৪০০ মিটার উঁচুতে অবস্থিত এ কলেজে ১১ থেকে ১৮ বছরের শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা করতে পারে। বিশ্বের ৪০টিরও বেশি দেশের শিক্ষার্থী এখানে পড়াশোনা করে। ফ্রেন্স ও ইংরেজি ভাষায় পড়ানো হয় স্কুলটিতে। নামি রেসিং ড্রাইভার জ্যাকুস ভিলেনেভ, ডেনমার্কের রাজকন্যা মেরিসহ অনেক রাজপরিবারের সদস্যই এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সাবেক শিক্ষার্থী

 

 

লা রোজি স্কুল

বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল লা রোজি স্কুলের বার্ষিক খরচ প্রায় ৮৩ লাখ টাকা। ১৯৬৭ সালে প্রতিষ্ঠিত সুইজারল্যান্ডের রোলি শহরের বোর্ডিং স্কুল ‘লা রোজি’তে সাত থেকে ১৮ বছর বয়সী বাচ্চারা পড়াশোনা করে। এখানে ৬০টিরও বেশি দেশের শিশুরা পড়তে আসে। কোনো দেশের শিক্ষার্থী যেন সংখ্যাগরিষ্ঠ না হয় সে জন্য যেকোনো দেশের ১০ শতাংশের বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি হতে পারে না এখানে। এ স্কুলের কার্যক্রম দুই ঋতুতে দুই জায়গায় চলে। শীতের সময় গিস্টাদ ক্যাম্পাসে ক্লাস হয়।

কারণ সকালের পড়াশোনার পর শিক্ষার্থীরা স্কি স্লপে খেলতে পারে। বসন্তকালে রোজি গ্রামের লেকের ধারের ক্যাম্পাসে ক্লাস হয়। সেই রোজি লেকে এক হাজার শিক্ষার্থীর ধারণক্ষমতাসম্পন্ন একটি প্রমোদতরী রয়েছে। ইরানের বাদশা, মিসরের রাজা, স্যার রোজার মুর, জন লেনন, চার্চিলের নাতি ও এলিজাবেথ টেইলর—এঁরা তাঁদের সন্তানদের এখানে পড়তে পাঠিয়েছিলেন।

 

 

এইগলন কলেজ

বিশ্বের দ্বিতীয় ব্যয়বহুল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এইগলন কলেজের বার্ষিক খরচ প্রায় ৭৭ লাখ টাকা। ব্রিটিশ বোর্ডিং স্কুলের আদলে সুইজারল্যান্ডের ওলোন শহরের এইগলন কলেজে ৯ থেকে ১৮ বছর বয়সী ছেলে-মেয়েরা পড়াশোনা করতে পারে। এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সব কর্মকর্তা-কর্মচারী, শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শিক্ষার্থীরা সপ্তাহে তিন দিন সকালে ২০ মিনিট মেডিটেশন করে থাকে। বিখ্যাত অভিনেতা মাইকেল গিল, গ্রিসের রাজকন্যা তাতিয়ানা ও শাহিরাজাদের গোল্ডস্মিথের মতো সনামধন্য ব্যক্তিত্ব এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করেছেন।   

 

 

কলেজ ডু লেমান ইন্টারন্যাশনাল স্কুল

কলেজ ডু লেমান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে এক বছর বয়সী বাচ্চাও ভর্তি হতে পারে। ১ থেকে ১৮ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের ইংরেজি ও ফরাসি—এ দুটি ভাষায় পড়ানো হয়।   চতুর্থ ব্যয়বহুল এ স্কুলের বার্ষিক খরচ প্রায় ৭৫ লাখ টাকা। বিশ্বের ১০০টিরও বেশি দেশের শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা করে এ স্কুলে। জেনেভা সিটি ও পার্বত্য অঞ্চলের আট হেক্টর জমির ওপর বিস্তৃত এর ক্যাম্পাস। রাশিয়া, ফ্রান্সসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের স্বনামধন্য বক্তিত্ব এ স্কুলের শিক্ষার্থী ছিলেন।

 

লিসিন আমেরিকান স্কুল

পঞ্চম ব্যয়বহুল স্কুল লিসিন আমেরিকান স্কুলে ১২ শতাংশ শিক্ষার্থীই মার্কিনি। লিসিন শহরের এ স্কুলে বার্ষিক ব্যয় প্রায় ৭৩ লাখ টাকা। স্কুলটি স্কি ও স্নোবোর্ড সুবিধার জন্য সুপরিচিত। স্কুলের শিক্ষার্থীরা প্রতি সপ্তাহের মঙ্গলবার ও বৃহস্পতিবার দুপুরে পাহাড়ের ওপর খেলার সুযোগ পায়। এ স্কুলে যুক্তরাষ্ট্রের ১২ শতাংশ শিক্ষার্থী ছাড়াও সৌদি আরবের রাজপরিবারের সন্তানসহ বিশ্বের অনেক দেশের সম্ভ্রান্ত ধনী পরিবারের ছেলে-মেয়ে পড়াশোনা করে।     


মন্তব্য